বিক্ষোভের মুখে কবর থেকে তিমি উত্তোলন!

নিউজ ডেস্ক, সময়ের কণ্ঠস্বরঃ

অস্ট্রেলিয়ার সমুদ্র সৈকতে কবর দেয়া ৪০ ফুট দীর্ঘ একটি তিমিকে কবর থেকে তোলা হয়েছে। গত সপ্তাহে নিউ সাউথ ওয়েলসে জেলেদের জালে আটকে আহত অবস্থায় ধরা পড়ে তিমিটি।

সমুদ্রে আহত ও বিপন্ন প্রাণী উদ্ধারকারী একটি সংগঠন বলছে, তিমিটি হয়ত ১৩ শত কিলোমিটার দূরে তাসমানিয়ায় জালে আটকা পড়েছিল। মারার যাবার পর তিমি মাছটির আকৃতির কারণে এটিকে সৈকতেই কবর দেয়া হয়।

কিন্তু বিপত্তি বাধে, তিমিটির লাশ অন্য কোথাও সরিয়ে নিতে হবে—এই দাবি নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা হঠাৎই বিক্ষোভ শুরু করেন।

তাদের আশংকা তিমির এই কবরের কারণে বছরের পর বছর ধরে ঐ সৈকতে হাঙ্গর হানা দেবে। তাতে বিপন্ন হবে সমুদ্রের তীর ঘিরে স্থানীয়দের দৈনন্দিন কর্মকাণ্ড।

তবে, কর্তৃপক্ষ এ আশংকা উড়িয়ে দিয়েছে, তাদের বক্তব্য এমন আশংকার কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।

কিন্তু তা সত্ত্বেও যেহেতু অনেক মানুষ এর বিপক্ষে, সে কারণে কর্তৃপক্ষ তিমিটিকে সরিয়ে নেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

নোবি সৈকত সংলগ্ন তিন হাজারের বেশি বাসিন্দার দায়ের করা এক পিটিশনের প্রেক্ষাপটে শেষ পর্যন্ত সোমবার কর্তৃপক্ষ তিমিটির লাশ কবর থেকে উত্তোলন করতে বাধ্য হয়েছে।

পুরাকীর্তি স্থাপনায় মাটি খোঁড়ার কাজে যেসব বিশাল যন্ত্র ব্যবহার করা হয়, তেমন যন্ত্র কাজে লাগানো হয়েছে এক্ষেত্রে।

বিশাল তিমিটিকে কয়েক টুকরো করে কেটে সরিয়ে নেয়া হয়েছে তার মরদেহ। আর এ কাজে খরচ হয়েছে ৪০ হাজার মার্কিন ডলার অর্থাৎ টাকার অংকে ৩২ লাখ টাকা প্রায়।

তিমিটি ছিল হাম্পব্যাক জাতের। এই জাতের তিমি প্রতি বছর এন্টার্কটিকা থেকে অস্ট্রেলিয়া পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজার কিলোমিটার পথ পরিভ্রমণ করে থাকে।