🕓 সংবাদ শিরোনাম

যে নেতার নিজের মা মরে মরে, তাকে দেখতে আসে না আর আপনার জন্য আসবে কোন দুঃখে: শামীম ওসমান * কেরানীগঞ্জে প্যাকেজিং কারখানায় আগুন, ৩ ঘন্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে * পুলিশের উদ্ধার করা মাদক ছিনিয়ে নিয়ে প্রকাশ্যে খেল মাদকসেবীরা! * চাঁদা না দেয়ায় দোকানে হামলা ভাংচুর, ব্যবসায়ীকে মারধর * ধরাছোঁয়ার বাইরে মূল আসামিরা, মামলা তুলে নিতে হত্যার হুমকি * ভারতকে অনুরোধ করার দায়িত্ব কাউকে দেয়া হয়নি : ওবায়দুল কাদের * বঙ্গবন্ধু ভ্রাম্যমাণ রেলওয়ে জাদুঘর এখন ফরিদপুরে * কোটালীপাড়ায় একদিনে দু’জনের আত্মহত্যা * রাজবাড়ীতে মারামারি মামলায় সাংবাদিকসহ ২জন গ্রেফতার * নারায়ণগঞ্জে প্রাইভেটকারচাপায় পথচারীর মৃত্যু *

  • আজ শনিবার, ৫ ভাদ্র, ১৪২৯ ৷ ২০ আগস্ট, ২০২২ ৷

সৌদি এক ইমাম জিবরাঈল (আ.) সাথে সাক্ষাৎ এবং নামাজ পড়েছেন বলে দাবি করেছেন


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ১৯, ২০১৬ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক –   সৌদি আরবের এক ইমাম জিবরাঈল (আ.) এক দল ফেরেশতার সাথে সাক্ষাৎ এবং নামাজ পড়েছেন বলে দাবি করেছেন। আছির প্রদেশের খামিশ মুশায়াত শহরের প্রধান ইমাম আহমেদ আল হাওয়াশি এমন দাবি করেছেন। রমজানে জিবরাঈল আর কয়েকজন ফেরেশতা মসজিদে তার ইমামমিতে তারাবি নামাজ আদায় করেছেন বলেও উল্লেখ করেছেন। এ খবর জানিয়েছে সৌদি আরবের গণমাধ্যম সৌদি গ্যাজেট।

jibraiel

ইমাম আরো বলেছেন, নামাজ শেষে তিনি ফেরেশতাদের আসসালামু আলাইকুম বলে সম্ভাষণ জানান এবং হাতের সাথে মুসাফাহা (করমর্দন) করেন। এই খবর সোস্যাল মিডিয়ার ছড়িয়ে পড়ার পর টনক নড়েছে সর্বোচ্চ প্রশাসনের। আছির রাজ্যের আমির প্রিন্স ফয়সাল বিন খালিদ জ্যেষ্ঠ আলেমদের নিয়ে একটি কমিটি করে ইমামের বিষয়ে তদন্ত করার নির্দেশ দেন।

পরে সরকারের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, লাইলাতুল কদর শেষ রমজানের কোনো এক বেজোড় রাতেই পড়ে। ওই ইমামের দাবি অনুযায়ী সেই মহিমান্বিত রাত্রি ২৯ রমজানেই পড়ে এমন কোনো বাধ্যবাধতা নেই।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, কমিটি শেষ পর্যন্ত ইমাম আল হাওয়াশিকে বিষয়টি বোঝাতে সক্ষম হয়েছে। তিনি অঙ্গীকার করেছেন, ভবিষ্যতে এমন কোনো বক্তব্যের পুনরাবৃত্তি করবেন না বলেও জানিয়েছেন। এছাড়া তাকে চাকরি ছাড়া করা হয়েছে।

তবে আল হাওয়াশি জোর দিয়ে বলেছেন, ফেরেশতাদের সাথে সাক্ষাতের বিষয়টি সঠিক আছে। তার সাথে জিবরাঈল ও আরো কয়েকজন ফেরেশতার সাক্ষাৎ হয়েছে, তিনি তাদের সাথে মুসাফাহা করেছেন। আর ইসলামে ফেরেশতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ অনুমতি আছে।

প্রমাণ হিসেবে তিনি উল্লেখ, রাসুলের (সা.) সাথে সাক্ষাৎ করতে আসা জিব্রাইলকে তার সহচররা (সাহাবী) সম্ভাষণ জানাতেন।