🕓 সংবাদ শিরোনাম

‘পদ্মা সেতু নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীরা দেশবিরোধী, এদের খুঁজে বের করতে হবে’ * পদ্মা সেতুর জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছে এশিয়ার ৫ দেশ * সাম্প্রতিক বন্যায় ৭ কোটি টাকার বেশি নগদ বরাদ্দ * সিলেটে আশ্রয়কেন্দ্রে এখনও ৫০ হাজার বন্যার্ত মানুষ * গত ২৪ ঘন্টায় পদ্মা সেতুতে টোল আদায় ২ কোটি ৯ লাখ * গর্ভপাতের অধিকার রক্ষার দাবিতে আমেরিকার বিভিন্ন প্রদেশে বিক্ষোভ * এবার পাবনায় একসঙ্গে ৩ সন্তানের জন্ম, নাম পদ্মা-সেতু-উদ্বোধন * নীলফামারীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু * সুনামগঞ্জে বন্যার্তদের মাঝে কোস্ট গার্ড মহাপরিচালকের ত্রাণ বিতরণ * চার দফা দাবিতে পাবিপ্রবির ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ *

  • আজ সোমবার, ১৩ আষাঢ়, ১৪২৯ ৷ ২৭ জুন, ২০২২ ৷

কালকিনিতে প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে উপবৃত্তির টাকা প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ১৯, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

এইচ এম মিলন, কালকিনি প্রতিনিধি: মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার ৩৬নং নবগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা হালাদার রানী বালার বিরুদ্ধে ছাত্র-ছাত্রীদের উপবৃত্তির টাকা প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আর এতে করে ওই বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকরা চড়ম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

oviman

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ৩৬নং নবগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উপবৃত্তি প্রাপ্ত ৩৬৪ জন ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ১২শ টাকা করে দেয়ার কথা থাকলেও প্রধান শিক্ষিকা হালদার রানী বালা অনিয়মের আশ্রায় নিয়ে ৬শ টাকা করে প্রদান করেন। এবং বাকি টাকা তিনি আত্মসাৎ করেন। এদিকে অনিয়মের ব্যাপারটি জানতে পেরে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিবাবকরা ডিজি, জেলা প্রশাসক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এ বিষয় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অন্যনা গুপ্ত, শুভ ও ঝুমা জানায়, আমরা উপবৃত্তির টাকা ১২শ করে না পেয়ে ৬শ টাকা করে পেয়েছি।

এ ব্যাপারে গোপাল মন্ডল, রবি শংকর বাড়ৈ ও অশিম গুপ্ত সহ শতাধিক শিক্ষার্থীদের অভিবাবক অভিযোগ করে বলেন, প্রধান শিক্ষিকা হালদার রানী বালা আমাদের সন্তাদের উপবৃত্তির অর্ধেক টাকা দিয়ে বাকি টাকা আত্মসাৎ করেছেন। আমার এই দুনীতিবাজ শিক্ষিকার অপসারনের দাবি জানাই।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষিকা হালদার রানী বালা সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, এ উপবৃত্তির টাকা আমি প্রদান করিনি আমার স্যারে প্রদান করেছেন। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।