ফুলবাড়ী হাসপাতালে দুধর্ষ চুরি, এ্যাম্বুলেন্স চালকসহ গ্রেফতার ৪

atok
❏ বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ১৪, ২০২১ রংপুর

অনিল চন্দ্র রায়, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা- কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা এবং আবাসিক মেডিকেল আফিসারের সরকারী কোয়াটারে দুধর্ষ চুরি সংঘটিত হয়েছে।

সংঘবদ্ধ চোরচক্র প্রকাশ্য দিবালোকে কোয়াটারের দরজার তালা কেটে নগদ টাকা ১ লাখ ২০ হাজার টাকা ও প্রায় ৬ লাখ টাকার স্বর্নালংকার চুরি করে নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে চোর সনাক্ত করে হাসপাতালের এ্যাম্বুলেন্স চালকসহ ৪ জনকে আটক করেছে।

জানা গেছে, বুধবার সকাল ১১টায় ইউএইচএফপিও ডাঃ শামছুন্নাহার ও আরএমও ডাঃ ফজিলাতুন্নেছা বর্ণা কোয়াটারের দরজায় তালা দিয়ে অফিস চলে আসেন। দুপুর ২টায় ডাঃ ফজিলাতুন্নেছা বর্ণা কোয়াটারে ফিরে দেখতে পান দুই দরজার তালা কাটা, জিনিসপত্র এলোমেলো এবং তার শোকেচের ড্রয়ারে রাখা নগদ ২০ হাজার টাকা নাই।

খবর পেয়ে ডাঃ শামছুন্নাহারও কোয়াটারে গিয়ে দেখতে পান তার ঘরের শোকেচের ড্রয়ারে রাখা নগত ১ লাখ টাকা প্রায় ও তার ব্যবহৃত প্রায় ৬লাখ টাকার স্বর্ণালংকার তালা ভেঙ্গে চোরেরা নিয়ে গেছে। পরে তিনি কোয়াটারে চুরির ঘটনা পুলিশকে জানান।

পুলিশ এসে হাসপাতালের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে বুধবার রাতেই ৪ জনকে আটক করে। আটককৃতরা হলেন- হাসপাতালের এ্যাম্বুলেন্স চালক (ড্রাইভার) একাব্বর আলী (৪৫), তার সহযোগী চন্দ্রখানা হাসপাতাল পাড়ার শরিয়ত উল্লার ছেলে শাহ আলম (৫০), হাসপাতালের স্বেচ্ছাসেবক ও চন্দ্রখানা জুম্মাপাড়া গ্রামের মৃত গোপাল চন্দ্র দাসের ছেলে প্রদীপ চন্দ্র দাস (২৭) ও চন্দ্রখানা মুছল্লিপাড়ার মকবুল হোসেনের ছেলে রফিকুল ইসলাম অপি (২৭)।

এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাজীব কুমার রায় জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চুরি ঘটনায় জড়িতদের আটক করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। মালামাল উদ্ধারে চেষ্টা চলছে এবং বৃহস্পতিবার দুপুরে আটক ওই চারজনকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।