🕓 সংবাদ শিরোনাম

বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে দেশকে চল্লিশ বছর পিছিয়ে দিয়েছে: আমির হোসেন আমু * ফরিদপুরে ১৪ দিন ধরে বন্ধ ক্লিনিক, টিকাদান কর্মসূচী চলছে স্কুলের বারান্দায়! * ফার্নেস অয়েলের দাম বাড়ল ১৫% * এবার গাড়িচাপায় প্রাণ গেল তিন মাদরাসাছাত্রের * ভারতে দুই বছর সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরল ৮ বাংলাদেশি নারী * পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী মা হতে চলেছে, দুলাভাই গ্রেপ্তার * ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মুখে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ * গার্ডার দুর্ঘটনা : ক্রেনচালকসহ গ্রেপ্তার ৯ * ফরিদপুর জেলা কারাগারে নেই কোনো চিকিৎসক, স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে বন্দীরা * পাথর খেকোদের দখলে ডাহুক নদী: নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ, ধ্বংস হচ্ছে ফসলি জমি *

  • আজ বৃহস্পতিবার, ৩ ভাদ্র, ১৪২৯ ৷ ১৮ আগস্ট, ২০২২ ৷

বেনাপোল বন্দর দিয়ে বন্ধ রয়েছে আমদানি-রফতানি

benapole
❏ রবিবার, জানুয়ারি ৩১, ২০২১ খুলনা

মহসিন মিলন, বেনাপোল প্রতিনিধি- আমদানি-রফতানি বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের হয়রানি বন্ধে, ৫ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আজ রোববার সকাল থেকে বন্ধ রয়েছে দু’দেশের আমদানি রফতানি বাণিজ্য।

ওপারে ভারতের পেট্রাপোল বন্দর জীবন-জীবিকা বাঁচাও কমিটি নামে একটি সংগঠন এ ধর্মঘটের ডাক দেয়। আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকলেও পাসপোর্টধারী যাত্রী যাতায়াত স্বাভাবিক রয়েছে।

সংগঠনটির ডাকা ধর্মঘটে সব ধরণের পণ্য আমদানি, রফতানি বন্ধ রয়েছে। তবে বেনাপোল বন্দরে মালামাল ওঠানামাসহ পন্য ডেলিভারি চালু রয়েছে।

আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকায় দু’দেশের বন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় আটকা পড়েছে শত শত পণ্য বোঝাই ট্রাক। ফলে ব্যবসায়ীরা বড় ধরনের লোকসানের কবলে পড়েছেন। আটকেপড়া পণ্যের মধ্যে রয়েছে রফতানিমুখী পাট ও পাটজাত দ্রব্য, মাছ, শিল্প কলকারখানার কাঁচামাল, তৈরি পোশাক, মেশিনারিজসহ বিভিন্ন ধরনের খাদ্যদ্রব্য।

বেনাপোল বন্দর দিয়ে প্রতিদিন ভারত থেকে প্রায় ৫ শতাধিক বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি ও ২৫০ ট্রাক পণ্য রফতানি হয় ভারতে।

ভারতীয় পেট্রাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট স্টাফ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্থিক চন্দ্র জানান, আমদানি-বাণিজ্যিক কার্যক্রম সম্পাদনে ভারতীয় সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ সদস্যরা বেনাপোল বন্দরে আসা-যাওয়া করছেন দীর্ঘদিন ধরে, কিন্তু সীমান্তরক্ষী বিএসএফ সম্প্রতি নিরাপত্তাজনিত কারণ দেখিয়ে তাদের যাতায়াত বন্ধ করে দেয়।

তাছাড়া বিএসএফের সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া ট্রাক তল্লাশিতে দীর্ঘ সময় ক্ষেপণ হচ্ছে। এসব সমস্যা সমাধানে আন্তরিক হতে বিএসএফকে বারবার জানানো সত্বেও সমাধান না হওয়ায় বাধ্য হয়ে বন্দর জীবন-জীবিকা বাঁচাও সংগঠনটি আমদানি-রফতানি বন্ধ করে দেয়।