🕓 সংবাদ শিরোনাম

ফতুল্লায় মাথা থেঁতলে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামী গ্রেফতার * তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে আধা বেলা হরতালের ডাক * নজরদারির অভাব: শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ এলাকায় অপরাধীদের আনাগোনা * মুখ ফসকে অনাকাঙ্ক্ষিত শব্দ বেরিয়ে গেছে: গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী * মাধবপুরে নিখোঁজের ৩ দিন পর গাছে মিলল ঝুলন্ত দেহ * জিয়া কখনই প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন না: হানিফ * প্রতিরোধ নারায়ণগঞ্জ থেকে শুরু হবে, খেলায় আমরাই জিতব: শামীম ওসমান * সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত * স্কুলছাত্রের ঘরে ঢুকে দরজা আটকালেন কলেজছাত্রী, রাত গভীরে গ্রাম্য সালিসে হলো বিয়ে * সালথায় আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরে চাঁদাবাজি, আটক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের স্বামী *

  • আজ মঙ্গলবার, ১ ভাদ্র, ১৪২৯ ৷ ১৬ আগস্ট, ২০২২ ৷

ঘাটাইলে ‘বেপরোয়া’ হয়ে উঠেছে বালু খেকোরা!

ghatail
❏ শনিবার, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২১ ঢাকা

খাদেমুল ইসলাম মামুন, ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার ছয়ানি বকশিয়া ও দেওপাড়া এলাকায় ফসলি জমিতে নিষিদ্ধ বাংলা ড্রেজার বসিয়ে অবাধে বালু উত্তোলন করছেন বালু ব্যবসায়ীরা। স্থানীয় প্রশাসনের নিষেধ মানছেন না তারা।

প্রশাসন সকাল বেলা বালু উত্তোলনের ড্রেজার মেশিন বন্ধ করলেও বিকাল বেলায় ফের চালু করছেন বালু ব্যবসায়ীরা। এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের কাছে বার বার লিখিত অভিযোগ করেও কোন ফল পাচ্ছেন না ভুক্তভোগীরা।

বালু উত্তোলন বন্ধের দাবিতে গত ২ ফেব্রুয়ারি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন উপজেলার লোকেরপাড়া ইউনিয়নের ছয়ানী বকশিয়া গ্রামের কৃষক হাবিবুর রহমান খান।

অভিযোগ থেকে জানা যায়, উক্ত গ্রামের আবু সাঈদ তালুকদার খসরু প্রথমে তার প্রায় ২ বিঘা ফসলি জমির টপসয়েল কেটে ইট ভাটায় বিক্রি করেন। পরে সেই জমিতে বাংলা ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করে বিক্রি শুরু করেন। ফসলি জমি থেকে বালু উত্তোলনের কারণে পাশের ফসলি জমি ভাঙছে।

কিন্তু জমি ও ড্রেজারের মালিক প্রভাবশালী হওয়ায় নিরীহ কৃষকরা তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না। প্রতিবাদ করতে গেলেই ড্রেজার মালিক গালিগালাজ করেন বলে জানান স্থানীয় কৃষকরা।

লোকেরপাড়া ইউনিয়ন উপ সহকারী ভূমি কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে আমি নিজে গিয়ে তিনবার ড্রেজার মেশিন বন্ধ করে দিয়েছি। সর্বমোট চারবার ড্রেজার মেশিনটি বন্ধ করা হয়েছে। প্রশাসন বন্ধ করার পরক্ষণেই কীভাবে আবার চালু করা হয় এটাই প্রশ্ন ভুক্তভোগীদের।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অঞ্জন কুমার সরকার বলেন, অভিযান চালিয়ে একাধিকবার বালু উত্তোলনের ড্রেজার মেশিন বন্ধ করা হয়েছে। কেউ কথা শোনে না।