🕓 সংবাদ শিরোনাম

যে নেতার নিজের মা মরে মরে, তাকে দেখতে আসে না আর আপনার জন্য আসবে কোন দুঃখে: শামীম ওসমান * কেরানীগঞ্জে প্যাকেজিং কারখানায় আগুন, ৩ ঘন্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে * পুলিশের উদ্ধার করা মাদক ছিনিয়ে নিয়ে প্রকাশ্যে খেল মাদকসেবীরা! * চাঁদা না দেয়ায় দোকানে হামলা ভাংচুর, ব্যবসায়ীকে মারধর * ধরাছোঁয়ার বাইরে মূল আসামিরা, মামলা তুলে নিতে হত্যার হুমকি * ভারতকে অনুরোধ করার দায়িত্ব কাউকে দেয়া হয়নি : ওবায়দুল কাদের * বঙ্গবন্ধু ভ্রাম্যমাণ রেলওয়ে জাদুঘর এখন ফরিদপুরে * কোটালীপাড়ায় একদিনে দু’জনের আত্মহত্যা * রাজবাড়ীতে মারামারি মামলায় সাংবাদিকসহ ২জন গ্রেফতার * নারায়ণগঞ্জে প্রাইভেটকারচাপায় পথচারীর মৃত্যু *

  • আজ শনিবার, ৫ ভাদ্র, ১৪২৯ ৷ ২০ আগস্ট, ২০২২ ৷

বগুড়ায় হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা সংকটের সমাধান

news 5t
❏ শনিবার, জুলাই ৩, ২০২১ Uncategorized

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ায় করোনা বিশেষায়িত সরকারি মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল ও শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা সংকটের সমাধান হয়েছে।

হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা সংকটে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে বৃহস্পতিবার (০১ জুলাই) রাত ৮টা থেকে ০২ জুলাই শুক্রবার সকাল ১০টা পর্যন্ত ১৪ ঘণ্টায় ৭ জন মারা যান। এই সংবাদ সময়ের কন্ঠস্বরসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশের পর এস আলম গ্রুপ হাসপাতালে হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা প্রদান করে।

শনিবার (৩ জুলাই) সরকারি মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল ও শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সংকটাপন্ন রোগীদের জন্য ২০টি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা প্রদান করা হয়।

এস আলম গ্রুপের পক্ষে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের বগুড়া অঞ্চলের প্রধান আব্দুস সোবহান এবং ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের রাজশাহী অঞ্চলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট সেলিম উল্লাহ শনিবার চিকিৎসা সরঞ্জামগুলো বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. এটিএম নুরুজ্জামান সঞ্চয় এবং শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মোহসিনের কাছে হন্তান্তর করেন।

ডা. এটিএম নুরুজ্জামান বলেন, সরঞ্জামগুলো সংকটাপন্ন রোগীদের জীবন রক্ষায় সহায়ক হবে। সরঞ্জামগুলো আজকের মধ্যেই সংযোজন করতে প্রকৌশলীরা কাজ শুরু করেছেন। নতুন ১০টি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা সংযোজন করা গেলে হাসপাতালের আইসিইউ ইউনিটটি স্বয়ংসম্পূর্ণ হবে।

এর আগে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ৮ শয্যার আইসিইউ ইউনিটে মাত্র ২টি ন্যাজাল ক্যানোলা ছিল। এতে রোগীদের চাহিদা অনুযায়ী উচ্চ মাত্রার অক্সিজেন সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছিল না।

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. আব্দুল ওয়াদুদ জানান, উপহার হিসেবে পাওয়া ১০টি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা সংযোজন করা গেলে ওই হাসপাতালের মোট ২২টি শয্যায় উচ্চ মাত্রায় অক্সিজেন সরবরাহ করা সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে আরও ১০০ শয্যা বৃদ্ধির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এজন্য হাসপাতালের মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডকে প্রস্তুত করা হচ্ছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে রোববার থেকেই সেখানে রোগী ভর্তি শুরু করা হবে।