ঘুষ লেনদেন, এএসআই প্রত্যাহার

Mymensing news
❏ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২১ ময়মনসিংহ

কামরুজ্জামান মিন্টু, স্টাফ রিপোর্টার: মামলা করতে আসা এক ব্যক্তির সঙ্গে ঘুষ লেনদনেরে অভিযোগে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরির্দশক (এএসআই) মো. কামরুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সময়ের কন্ঠস্বরকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের মিয়া।

তিনি বলেন, শনবিার রাতে এএসআই কামরুল হাসানকে প্রত্যাহারের আদেশ দিয়েছেন পুলিশ সুপার। কামরুল হাসান আগে থেকেই ছুটি নিয়ে নেত্রকোনায় গ্রামের বাড়িতে থাকায় পুলিশ লাইন্সে যোগ দিতে পারেননি।

স্থানীয়রা জানান, প্রেম সংক্রান্ত ঘটনায় গত ১৩ আগস্ট ভুয়া জন্ম নিবন্ধন সনদ দিয়ে ঈশ্বরগঞ্জ উপজলোর উচাখিলা ইউনিয়নের আলাদিয়ার আলগী গ্রামে পাঁচ লাখ টাকা দনেমোহরে এক নাবালকের বিয়ে রেজিস্ট্রি হয়। ১৪ বছর বয়সী নবম শ্রণীতে পড়ুয়া মিজান মিয়া বিজয়ের বাবা
তারা মিয়া এ বিয়ে করাতে চাননি। জোড়করে বিয়ের পর মেয়ের পরিবার অন্যস্থানে সরিয়ে রাখেন নতুন বর ও কনেকে। এ ঘটনায় দুই পরিবারের বাদে দন্দ।

অভিযোগ রয়েছে, বরের বাবা তারা মিয়া কনের পরিবারের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করতে গেলে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন এএসআই কামরুল হাসান।

পরে কয়েক দফায় এএসআই কামরুল ইসলামকে ২৪ হাজার টাকা দেন তারা মিয়া। কিন্তু টাকা নিয়েও তার অভিযোগ গ্রহণ করা হয়নি। একইভাবে কনের বাবার কাছ থেকেও মামলা করার জন্য টাকা নেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে গৌরীপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,
ঘুষ গ্রহনের অভিযোগে পুলিশ লাইন্সে প্রত্যাহার (ক্লোজড) করা হয়েছে। এই ঘটনার তদন্ত চলছে। সত্যতা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।