দিনমজুর থেকে সুপার মডেল হবার অবিশ্বাস্য গল্প!

অবিশ্বাস্য গল্প
❏ বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ১৭, ২০২২ চিত্র বিচিত্র

চিত্র-বিচিত্র ডেস্ক: ভার্চুয়াল দুনিয়ায় সবার কাছে দ্রুত পৌছে যাবার সুযোগে কখন কিভাবে কার কপাল খুলে যাচ্ছে তা নির্নয় রিতিমত অসাধ্য এখনকার সময়ে।

তেমনি এবার কপাল খুলেছে পেশায় দিনমজুর এক বৃদ্ধের! বয়স ৬০ পেরিয়েছে ইতোমধ্যেই। জীবিকার তাগিদে এতকাল কাজ করতেন দিনমজুর হিসেবে। মাথাভরা উষ্কখুষ্ক চুল আর জরাজীর্ন মুখের সাধারণ মুখচ্ছবির এই বৃদ্ধ স্বপ্নেও ভাবেনি এভাবে ভাগ্যের চাকা ঘুরবে তার কখনো । পরিচিতরা তাঁকে মলিন চেহারায় দেখতেই অভ্যস্ত। তবে বর্তমানে তিনি গ্ল্যামারের ছটায় চোখ ধাঁধিয়ে দিচ্ছেন অন্যদের।
অনেকেই ওই বৃদ্ধর বর্তমান ছবি দেখে বলেছেন, ঠিক যেন মালয়ালাম অভিনেতা বিনায়কন!

অথচ তাঁর রোজনামচায় নতুনত্ব ছিল না। সকালে ঘুম থেকে উঠে দৌড়াতে হতো রুজিরুটির সন্ধানে। দিনের শেষে সামান্য যা কিছু রোজগার হতো, তা দিয়ে মাছ-শাকসবজি কিনে বাড়ি ফিরতেন। কোঝিকোড়ের বেন্নাক্কড় এলাকার ওই বৃদ্ধ দিনমজুরের এটাই ছিল প্রতিদিনের রুটিন।

শ্রমিকের কাজ করে দিন পার করা বৃদ্ধ রাতারাতি হয়ে উঠেছেন ওয়েডিং স্যুটের মডেল!

ভারতের কেরালার কোঝিকোড়ের বৃদ্ধ মাম্মিক্কার আজ সবার নজর কাড়ছেন। বিয়ের স্যুটের মডেল হিসেবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোরগোল ফেলে দিয়েছেন তিনি। তাঁর পরনে উঠছে দামি স্যুট!

হুট করেই তাঁর ভাগ্য বদলে গেছে। রংচটা লুঙ্গি আর শার্ট ছেড়ে দামি স্যুট-টাই গায়ে চড়িয়ে ক্যামেরার মুখোমুখি হচ্ছেন। স্থানীয় একটি ওয়েডিং স্যুট প্রস্তুতকারী সংস্থার হয়ে মডেলিং করে রাতারাতি খ্যাতির আলোয় এসেছেন।

ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ সুত্র বলছে, মাম্মিক্কার গ্ল্যামারাস লুক দেখে মুগ্ধ তাঁর প্রতিবেশীদের পাশাপাশি নেটিজেনরাও। জানা গেছে, কেরালার খ্যাতনামা ফটোগ্রাফার শরিক বয়ালিল শেখের নজরে পড়েছিলেন মাম্মিক্কা। সেটাও অনেক দিন আগের কথা। ওই সময় মাম্মিক্কার একটি ছবি তুলে ফেসবুকে শেয়ার করেছিলেন শরিক। তা নিয়ে বেশ হৈচৈ পড়ে গিয়েছিল।

মাম্মিক্কার ছবি পোস্ট করার পর তা ভুলেও গিয়েছিলেন শরিক। তবে সম্প্রতি নিজের ওয়েডিং সংস্থার জন্য একজন মডেলের প্রয়োজন হয়েছিল তাঁর। শরিক বলেছেন, মডেলের প্রয়োজন পড়তেই একজনের কথাই মাথায় এসেছিল। তিনি মাম্মিক্কা!

মডেলিং করার জন্য মাম্মিক্কার সঙ্গে যোগাযোগ করেন শরিক। তাঁর মেকআপও শুরু হয়। মাম্মিক্কাকে দামি সেলুনে নিয়ে যাওয়া হয়। উষ্কখুষ্ক চুল ছাঁটা হয় কেতাদুরস্ত চালে। খসখসে ত্বকের জৌলুস ফেরাতে প্রসাধনী ব্যবহার করা হয়। এবার ট্রিম করা হয় তাঁর এলোমেলো গোঁফদাড়ি। রাতারাতি ভোল বদলে যায় বৃদ্ধ দিনমজুরের।

বেশ খাটাখাটুনির পর বৃদ্ধের ফটোশুট শুরু করেন শরিক। শরিকের হাতের জাদুতে কাজও হয়েছে বেশ। সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা গেছে, মডেল মাম্মিক্কার চোখধাঁধানো বহু ছবি। এক হাতে ধরা অ্যাপল আইপ্যাড, চোখ ঢাকা দামি রোদচশমায়, পরনে দামি স্যুট-টাই কিংবা ঝাঁ-চকচকে এসইউভির বাইরে দাঁড়ানো অবস্থায় তাঁকে দেখা গেছে।