🕓 সংবাদ শিরোনাম

যে নেতার নিজের মা মরে মরে, তাকে দেখতে আসে না আর আপনার জন্য আসবে কোন দুঃখে: শামীম ওসমান * কেরানীগঞ্জে প্যাকেজিং কারখানায় আগুন, ৩ ঘন্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে * পুলিশের উদ্ধার করা মাদক ছিনিয়ে নিয়ে প্রকাশ্যে খেল মাদকসেবীরা! * চাঁদা না দেয়ায় দোকানে হামলা ভাংচুর, ব্যবসায়ীকে মারধর * ধরাছোঁয়ার বাইরে মূল আসামিরা, মামলা তুলে নিতে হত্যার হুমকি * ভারতকে অনুরোধ করার দায়িত্ব কাউকে দেয়া হয়নি : ওবায়দুল কাদের * বঙ্গবন্ধু ভ্রাম্যমাণ রেলওয়ে জাদুঘর এখন ফরিদপুরে * কোটালীপাড়ায় একদিনে দু’জনের আত্মহত্যা * রাজবাড়ীতে মারামারি মামলায় সাংবাদিকসহ ২জন গ্রেফতার * নারায়ণগঞ্জে প্রাইভেটকারচাপায় পথচারীর মৃত্যু *

  • আজ শনিবার, ৫ ভাদ্র, ১৪২৯ ৷ ২০ আগস্ট, ২০২২ ৷

দ্বিতীয়বারের মত সোমালিয়ার প্রেসিডেন্ট হলেন হাসান শেখ মোহামুদ


❏ সোমবার, মে ১৬, ২০২২ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: দীর্ঘ সময় ধরে চলা নির্বাচনের পর গতকাল রোববার হর্ন অব আফ্রিকার দেশ সোমালিয়ায় নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন হাসান শেখ মোহামুদ। তিনি দেশটির একজন সাবেক নেতা। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

হাসান শেখ মোহামুদ এর আগে ২০১২ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত সোমালিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। গতকাল রাজধানী মোগাদিসুতে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে তিনি পুনরায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী ছিলেন ৩৬ জন। মোট ৩২৮টি ভোটের মধ্যে ২১৪ ভোট পেয়েছেন হাসান শেখ মোহামুদ। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আব্দুল্লাহি ফার্মাজো পেয়েছেন ১১০ ভোট। তিনজন সংসদ সদস্য ব্যালট পেপার নষ্ট করেছেন এবং একজন সংসদ সদস্য ভোট দেননি বলে জানা গেছে।

অভ্যন্তরীণ কোন্দল ও নিরাপত্তা সমস্যার কারণে সোমালিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন প্রায় ১৫ মাস বিলম্বিত হয়েছে। তিন দফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার পর গতকাল চূড়ান্তভাবে বিজয়ী হন হাসান শেখ মোহামুদ। তিনি আগামী চার বছরের জন্য প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করবেন।

কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও ভোটের সময় নির্বাচনস্থলের কাছাকাছি বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে। তবে পুলিশ জানিয়েছে, কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

সোমালিয়ার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে খরা ও দুর্ভিক্ষ সামলাতে হবে। জাতিসংঘ জানিয়েছে, সোমালিয়ার ৩৫ লাখ মানুষ চরম দুর্ভিক্ষ ঝুঁকিতে রয়েছে। ইউক্রেন যুদ্ধর কারণে দেশটিতে খাদ্য ও জ্বালানি সংকট দেখা দিয়েছে।

এ ছাড়া প্রেসিডেন্টের সামনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, আল-শাবাবের কাছ থেকে সোমালিয়ার বেশির ভাগ নিয়ন্ত্রণ পুনরুদ্ধার করা। আল-শাবাব ইসলামি চরমপন্থী গোষ্ঠী আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট একটি দল। তারা সোমালিয়ার বড় অংশে নিজেদের আধিপত্য ধরে রেখেছে। আল-শাবাব মাঝে মাঝেই মোগাদিসু ও অন্যান্য এলাকায় হামলা চালায়।

সোমালিয়া সরাসরি নির্বাচন করতে না পারার অন্যতম কারণ হলো অস্থিরতা। আফ্রিকার এই দেশটিতে ১৯৬৯ সাল থেকে গণতান্ত্রিক নির্বাচন হয়নি। দেশটিতে স্বৈরশাসক, সেনাবাহিনী ও ইসলামি চরমপন্থী গোষ্ঠীরা পরস্পর সংঘাতে লিপ্ত।

দীর্ঘদিন পর সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুতে পরোক্ষ প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো। এর আগের নির্বাচনগুলো প্রতিবেশী দেশ কেনিয়া এবং জিবুতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল।