🕓 সংবাদ শিরোনাম

গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় কেউ মারা যায়নি দেশে * মেয়েদের জমি লিখে দেওয়ার বিরোধে বাবার হাতে খুন হলেন ছেলে * মাইক্রোসফটের সঙ্গে ওয়ালটনের চুক্তি * গাজীপুরে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকীতে স্কুল ড্রেস বিতরণ * গত ২৪ ঘন্টায় দেশে ১২৮ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি * ‘আড্ডা প্রিয়’ স্বামীকে দ্বিতীয় বিয়ে করতে বলে অভিমানী স্ত্রীর আত্মহত্যা! * অভিনব কায়দায় প্রেমের ফাঁদে মোটরসাইকেল ছিনতাই, গ্রেপ্তার হলো তরুনী * বরগুনায় ছাত্রলীগ কর্মীদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জ: তদন্ত করবে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ * ফরিদপুরে জুট মিলের রোলারে পিষ্ট হয়ে শ্রমিকের মৃত্যু * ফরিদপুরে স্ত্রীর করা মামলায় পুলিশ কর্মকর্তার কারাদণ্ড *

  • আজ মঙ্গলবার, ১ ভাদ্র, ১৪২৯ ৷ ১৬ আগস্ট, ২০২২ ৷

বিচারপতি পরিচয়ে পুলিশি প্রোটোকলে বাড়িতে এসে আটক দোকানদার!


❏ শুক্রবার, মে ২০, ২০২২ Uncategorized

মাহফুজুর রহমান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট (চাঁদপুর): গাড়িতে কোন পতাকা নেই, সাথেও নেই বডিগার্ড। ফোনে পরিচয় দেন তিনি বিচারপতি, নেন পুলিশ প্রোটেকশনও। এরপর অত্যান্ত সম্মানজনকভাবে প্রোটকল দিয়ে বাসায় আনে পুলিশ। পরে জানা যায় তিনি একজন ওয়ার্কশপের দোকানদার।

হাইকোর্ট ডিভিশনের বিচারপতি পরিচয়দানকারী মো: আরিফ হোসেন ওরফে বিপ্লব প্রধান (৪৫) নামের এক ভুয়া বিচারপতিকে আটক করেছেন চাঁদপুরের মতলব দক্ষিন থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত প্রতারক আরিফ মতলব পৌরসভার উত্তর দীঘলদি গ্রামের মাহবুব প্রধানের ছেলে।

জানা যায়, প্রতারক আরিফ বেশ কয়েকবছর আগে মতলব বাজারে স্টিলের দোকানে কাজ করতো। এরপর দীর্ঘদিন যাবত ঢাকায় থাকে আরিফ। এদিকে তার স্বজনরা বলছে, আরিফ মানসিকভাবে অসুস্থ।

আরিফের গাড়ির চালক সেলিম জানায়, ‘আমাকে রায়েরবাগ থেকে রোজ গাড়ি ভাড়া ২ হাজার টাকা হিসেব করে ৭ দিনের জন্য ভাড়া নেয় আরিফ। দাউদকান্দি আসলে তিনি ফোন বের করে বিচারপতি পরিচয় দেন। আমি আর কিছুই জানিনা, বুঝতেই পারিনি কিছু।

এই ঘটনার তদন্তে ছুটে আসেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) সুদীপ্ত রায়। সময়ের কন্ঠস্বরকে তিনি জানান, ‘ রাজধানী ঢাকার ফার্মগেট এলাকা থেকে একটি প্রাইভেট গাড়ি ভাড়া করে নিজ বাড়ি মতলব দক্ষিণের উদ্দ্যেশ্যে আসেন প্রতারক আরিফ। এরপর দাউদকান্দি পৌছালে জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯ ফোন দিয়ে পরিচয় দেন তিনি বিচারপতি।

‘সেখান থেকে কুমিল্লা কন্ট্রোল রুম ও চাঁদপুর ডিস্ট্রিক্ট ইনটেলিজেন্ড (ডিআই১) এর নম্বর সংগ্রহ করে আরিফ। এরপর ফোনে কথা বলে সন্দেহভাজন মনে হলেও তদন্তের স্বার্থে পুলিশ প্রোটকলে তাকে আনা হয়ে বাড়িতে। এসময় আশ-পাশের মানুষের সাথে কথা বলে খোঁজ-খবর নিয়ে প্রতারক হিসেবে নিশ্চিত হয়ে থানায় নিয়ে আসা হয় প্রতারক আরিফকে। এই বিষয়ে মতলব দক্ষিন থানায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।