• আজ বৃহস্পতিবার, ১৬ আষাঢ়, ১৪২৯ ৷ ৩০ জুন, ২০২২ ৷

তালেবানের আদেশে মুখ ঢেকে টিভি পর্দায় আফগান নারীরা


❏ সোমবার, মে ২৩, ২০২২ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: তালেবানের আদেশ অনুসরণ করে রোববার থেকে আফগানিস্তানের টিভি চ্যানেলের নারী উপস্থাপক এবং সাংবাদিকরা মুখ ঢেকে পর্দার সামনে উপস্থিত হচ্ছেন।

একজন উপস্থাপক বিবিসিকে বলেন, টেলিভিশনে কর্মরত নারীরা প্রতিরোধ করলেও তাদের নিয়োগকর্তারা চাপের মুখে পড়েছেন। আগের দিন তাদের মধ্যে কেউ কেউ আদেশ অমান্য করেছিল। তবে রোববার তালেবানের এ আদেশ মানার প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছে।

গত বছর আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর তালেবান প্রশাসন নারীদের জীবন একের পর এক নিষেধাজ্ঞায় বেঁধে ফেলছে। ওই নিষেধাজ্ঞার তালিকায় সর্বশেষ সংযোজন টেলিভিশনের পর্দাতেও নারীদের মুখ ঢেকে হাজির হওয়ার নির্দেশ।

জনসম্মুখে নারীদের মুখ ঢেকে চলার নির্দেশ তো আগেই দেওয়া হয়েছিল। শনিবার থেকে টেলিভিশনের পর্দায় মুখ ঢেকে আসার নির্দেশ কার্যকর হওয়ার কথা বলা ছিল। এর প্রতিবাদে কয়েকজন নারী উপস্থাপক প্রাথমিকভাবে শনিবার মুখ খুলে টিভি সম্প্রচারে এসেছিলেন।

পরে তালেবান কর্মকর্তারা ঘোষণা দেন, তারা ওই নারী সাংবাদিকদের ম্যানেজার এবং অভিভাবকের সঙ্গে কথা বলে তাদের শাস্তি দেওয়ার ব্যবস্থা করবে।

দেশটির স্থানীয় টেলিভিশন চ্যানেল টলোনিউজ, আরিয়ানা টেলিভিশন, শামশাদ টিভি এবং ওয়ান টিভির মতো জনপ্রিয় চ্যানেলে নারীরা হিজাব বা বোরখা পরে মুখ ঢেকে নিউজ বুলেটিন এবং অন্যান্য অনুষ্ঠান উপস্থাপনা ও রিপোর্ট করেছেন।

টলোনিউজের উপস্থাপক ফরিদা সিয়াল বিবিসিকে বলেন, এটা ঠিক যে আমরা মুসলিম। আমরা হিজাব পরি, আমরা আমাদের চুল আড়াল করি। কিন্তু একজন উপস্থাপকের পক্ষে পরপর দুই বা তিন ঘণ্টা মুখ ঢেকে এভাবে কথা বলা খুবই কঠিন।

তিনি বলেন, তিনি চান আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় তালেবানদের ওপর চাপ সৃষ্টি করুক যাতে এই আদেশ প্রত্যাহার করা যায়।

তারা সামাজিক ও রাজনৈতিক জীবন থেকে নারীদের মুছে ফেলতে চায় বলে তিনি অভিযোগ করেন।

তাছাড়া স্থানীয় একটি টেলিভিশনের কর্মকর্তা জানান, তার অফিসে তালেবানের নির্দেশ এসেছে গত সপ্তাহে। তবে রোববার থেকে নিয়মটি কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করছে সরকার।