🕓 সংবাদ শিরোনাম

করোনায় গত ২৪ ঘন্টায় ৪ জনের মৃত্যু * বিশ্বের ১১০টি দেশে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে, সতর্ক করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা * গাইবান্ধায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীসহ ২জনের মৃত্যুদন্ডাদেশ * বন্যাদূর্গত হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে মুফতী মুনীর উদ্দিনের নেতৃত্বে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ * কক্সবাজারে যাবজ্জীবনসহ তিন জনের কারাদণ্ড * গাজীপুরে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু * গাজীপুরে গাড়ির যন্ত্রাংশ চোর চক্রের ১২ সদস্য গ্রেফতার * ডিসেম্বরেই পাতাল জয়, খুলবে ‘বঙ্গবন্ধু টানেল’ * ২০২৩ সালে উদ্বোধন হবে ঝিনুক আকৃতির রেলস্টেশন * টাঙ্গাইলে পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবলদের সমাপনী অনুষ্ঠান *

  • আজ বৃহস্পতিবার, ১৬ আষাঢ়, ১৪২৯ ৷ ৩০ জুন, ২০২২ ৷

প্রতারণার টার্গেট তরুণ ও প্রবাসীরা: প্রেমের ফাঁদে ফেলে সর্বস্ব লুটে নিচ্ছেন প্রতারক চক্র

Chadpur news
❏ মঙ্গলবার, মে ২৪, ২০২২ চট্টগ্রাম

মাহফুজুর রহমান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট (চাঁদপুর): ফেসবুকে অন্যের ছবি ব্যবহার করে প্রেমের ফাঁদে ফেলে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে ছেলেদের সাথে প্রতারণা করাই ছিলো এই নারীর কাজ।

প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, প্রকৃত নাম শায়লা পারভিন। তবে শায়লা পারভিন ছাড়াও বিভিন্ন নামে ফেসবুক আইডি খুলে উঠতি বয়সী তরুণ, প্রবাসীসহ যুবকদের প্রেমের ফাঁদে ফেলতেন তিনি। অনলাইনে নগ্ন ছবি পাঠিয়ে ঘনিষ্ট সম্পর্ক তৈরী করে প্রতারনার মাধ্যমে হাতিয়ে নিতেন লাখ লাখ টাকা।

জানা গেছে, প্রতারক শায়লা পারভিন বিভিন্ন মাধ্যমে সুন্দরী নারীদের ছবি সংগ্রহ করে বিভিন্ন আইডির মাধ্যমে সেই রুপের জাদুতে ভেলকি লাগিয়ে নিঃস্ব করছে অগনিত যুবকদের। আর একটু অসতর্ক তরুণ বা যুবকরাই তার প্রধান টার্গেট।

জানা গেছে, প্রতারণা ও দেহব্যবসার সাথে জড়িত এই নারীর বাড়ি কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদি উপজেলার কারাগায়ন বাজার। প্রথমে ফেসবুকে টার্গেট করে ছেলেদের ফ্রেন্ড রিকুয়েষ্ট দেয় এই নারী। কিছু দিন আলাপচারিতার পর শুরু করেন অশালীন কতাবার্তা। প্রতারক শায়লা পারভীন নিজের দেহকে পুঁজি করে অগনিত ছেলেদের সাথে ছল-ছাতুরীর মাধ্যমে বিভিন্ন অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেন।

শায়লা পারভিন নামের এই প্রতারকের প্রেমের ফাঁদে পড়েন চাঁদপুরের এক যুবক। এই ভুক্তভোগী জানান, ‘শায়লা পারভীন নামে এক প্রতারক নারী প্রেমের নামে আমাকে ফাঁদে ফেলে বিভিন্ন নামে রেজিষ্ট্রেশনকৃত মোট ১২ টি বিকাশ নম্বরে মোট ৭ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তার রুপে, মিষ্টি মিষ্টি কথায় তার প্রেমে পড়ে যাই। ফেসবুকে মেসেঞ্জারে দিনরাত কথা হতে থাকে, আপত্তিকর ছবিও আদান-প্রদান করে ঘনিষ্টতা বাড়াতে থাকে। এরপর এক পর্যায়ে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে অত্যান্ত সু-কৌশলে তার বিভিন্ন সময়ে নানান সমস্যার কথা বলে বিকাশে টাকা নিতে থাকে।

‘হঠাৎ তাকে সন্দেহ হতে লাগলে যাচাই করার জন্য আমি আমার বন্ধু মহলে ঢাকা, চট্টগ্রাম, চাঁদপুরের কিছু বন্ধুদের নিকট তার ফেসবুক আইডিটা দিলে তারাও ফেসবুকে বন্ধুত্ব করে। শায়লা পারভীন তাদের সাথেও প্রেমের ফাঁদ পাততে চেষ্টা করে। জানতে পারি শায়লা পারভীনের ‘কঁথা আমি ভালোবাসি, রেখা আক্তার, শায়লা পারভীন, রিয়া আক্তার, এম টু এনালাইস, লাভনী রহমান, বর্ষা আক্তার, পিংকি সহ নানান রকম নামে ফেসবুক আইডি রয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন নামে হোয়াটসঅ্যাপ ও ইমু রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এভাবে প্রতারনার জালে অনেককেই জড়িয়ে বহু পরিবারকে ধ্বংস করেছে এই প্রতারক। এরা একা নয়, এদের সাথে বিশাল সংঘবদ্ধ চক্র মিলে এই অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। তাই বিভিন্ন মহলের দাবি, দ্রুত এই শায়লা পারভীন সহ প্রতারণায় জড়িত ভূঁয়া ব্যক্তি ও গোষ্টিকে শনাক্ত করে আইনের আওতায় এনে হাজারো শায়লা পারভীনকে শিক্ষা দেওয়া হোক’।

এই বিষয়ে পুলিশের সিনিয়র একজন কর্মকর্তার সাথে আলাপকালে জানান, ‘ অনলাইন ব্যবহারকারীদের খুব বেশি সতর্ক হতে হবে। কারণ এখানে পদে পদে ফাঁদ আর বিপদ। যেকোনো ফাঁদে পা দিয়ে জীবন ধ্বংস হতে পারে। তাই সকলের সচেতনতা বৃদ্ধিতে সকলের কাজ করতে হবে’।