🕓 সংবাদ শিরোনাম

নিজের অশ্লীল ছবি দিয়ে ফেসবুক মেসেঞ্জারে ছাত্রীর ছবি চান অধ্যক্ষ! * ‘চুক্তি বাতিল করেছি’, জানালেন সাকিব * বিয়ের নাটক সাজিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ, থানায় মামলা * পান্থপথের আবাসিক হোটেল থেকে নারী চিকিৎসকের গলাকাটা মরদেহ; গ্রেপ্তার ঘাতক * বিছনাকান্দি পর্যটন কেন্দ্রে রাতের আধারে পাথর চুরি, দিনে ট্রাকে বিক্রি * সিয়েরা লিওনে মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ, নিহত ২৭ * বিবাহ বহির্ভূতভাবে ১০ মাস সংসার! স্ত্রীর স্বীকৃতিতে নারীর অনশন * জাতীয় শোক দিবসে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে : আইজিপি * ম্যাকিয়াভেলির প্রভাবে শেখ হাসিনা, যা প্রয়োজন * ইস্টার আইল্যান্ডঃ অসংখ্য দানব আকৃতির মূর্তি-রহস্যের দ্বীপ! (শেষ পর্ব) *

  • আজ শুক্রবার, ২৮ শ্রাবণ, ১৪২৯ ৷ ১২ আগস্ট, ২০২২ ৷

আবার ভোট ইজ়রায়েলে, নেতানিয়াহু কি ফিরছেন

International news
❏ বুধবার, জুন ২২, ২০২২ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:  গত চার বছরের মধ্যে এ নিয়ে মোট পাঁচ বার। ফের পার্লামেন্ট নির্বাচন হতে চলেছে ইজ়রায়েলে। তবে এখনই নয়, হয়তো আগামী অক্টোবরে হবে সেই ভোট। আর তাতেই দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর ফিরে আসার সম্ভাবনা জোরদার হচ্ছে।

ইজ়রায়েলের পার্লামেন্ট ভেঙে ফেলার জন্য বিল আনার কথা ঘোষণা করেছেন বর্তমান জোট সরকারের উল্লেখযোগ্য দু’টি দলের প্রধান। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেট ও তাঁর বিদেশমন্ত্রী ইয়ায়ের লাপিড একযোগে এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, পার্লামেন্ট ভেঙে ফেলতে বিল আনা হবে আগামী সপ্তাহেই। তাতে সায় মিললে বর্তমান পালামেন্ট ভাঙা হবে এবং তার পরে নির্বাচন অনিবার্য। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী অক্টোবরে ভোট হওয়ার কথা। তত দিনের জন্য ইজ়রায়েলের প্রধানমন্ত্রীর পদ সামলাবেন ইয়েশ আতিদ পার্টির প্রধান লাপিড। সেটা হলে আগামী মাসে আমেরিকান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনার টেবিলে বসবেনলাপিড-ই।

দুর্নীতির অভিযোগে বিদ্ধ নেতানিয়াহুকে সরিয়ে বহু টালবাহানার পরে বছরখানেক আগে ইজ়রায়েলের প্রধানমন্ত্রীর গদিতে বসেছিলেন ইয়ামিনা পার্টির প্রধান নাফতালি বেনেট। তবে সে পথে কাঁটা ছিল বিস্তর। মোট আটটি ভিন্ন ভাবাদর্শের দলকে একত্রে নিয়ে জোট সরকার চালাতে কার্যত হিমশিম খেতে হচ্ছিল বেনেটকে। একই সঙ্গে রক্ষণশীল, উদারপন্থী, বামপন্থী এমনকি, আরব দলও ছিল বেনেটের জোট সরকারে। যারা সরকারের প্রায় কোনও বিষয়েই একমত হতে পারছিল না। সঙ্কট আরও গভীর হয়, যখন গত এপ্রিল মাসে বেনেটের দলের এক গুরুত্বপূর্ণ সদস্যা দল থেকে বেরিয়ে যান। ১২০ সদস্যের পার্লামেন্টে সংখ্যা গরিষ্ঠতা হারায় বেনেটের দল।

সম্প্রতি ওয়েস্ট ব্যাঙ্কে ইহুদিদের থাকা নিয়ে একটি পুরনো আইন পুনর্নবীকরণের প্রসঙ্গে বামপন্থী দলগুলির সঙ্গে সরকারের মত পার্থক্য চরমে ওঠে। এই পরিস্থিতিতে পার্লামেন্ট ভেঙে নতুন নির্বাচনের ঘোষণা করা ছাড়া বেনেটের কাছে আর কোনও রাস্তা খোলা ছিল না। এর মধ্যেই নেতানিয়াহুর নেতৃত্বে বিরোধী দলগুলি আগামী কাল পার্লামেন্ট ভাঙার বিল আনার হুমকি দিচ্ছিল। বেনেট এবং লাপিড তার আগেই নিজেদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন। লাপিডের পাশে দাঁড়িয়ে বেনেট বলেছেন, ‘‘কঠিন সময়ে আমি ঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছি বলে মনে করছি।’’ ভাবী অস্থায়ী প্রধানমন্ত্রী লাপিডকে পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদও জানিয়েছেন বেনেট। বলেছেন, ‘‘জোটবদ্ধ হয়ে কাজ করার সংস্কৃতি এ দেশে আমরাই এনেছি।’’ লাপিড বলেছেন, ‘‘নির্বাচনের এখন কয়েক মাস দেরি থাকলেও আমাদের দেশ কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি। ইজ়রায়েলের একতা রক্ষায় একত্রেই তার মোকাবিলা আমাদের করতে হবে।’’

নতুন নির্বাচনের পথ প্রশস্ত হওয়ায় ফের ক্ষমতায় ফেরার স্বপ্ন দেখছেন গদিচ্যুত নেতানিয়াহু। তাঁর বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলাগুলি অবশ্য এখনও বন্ধ হয়নি। তবে বিভিন্ন জনমত সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, নিরঙ্কুশ সংখ্যা গরিষ্ঠতা নিয়ে ফিরতে পারে তাঁর লিকুড পার্টি। নেতানিয়াহু নিজেও সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘‘হাওয়া ঘুরতে শুরু করেছে আর আমি সেটা ভালই টের পাচ্ছি।’’