🕓 সংবাদ শিরোনাম

রাত গভীরে ঘরের জানালা ভেঙে কিশোরীকে ধর্ষণ, আটক অভিযুক্ত বখাটে * ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে চাঁদা আদায়, অভিযোগে আটক প্রেমিকসহ দুই যুবক * প্রবাস থেকে ভিডিওকলে প্রেমিকার চোখের সামনে যেভাবে আগুনে পোড়েন প্রবাসী যুবক! * চকবাজারের অগ্নিকান্ডে নিহতদের স্বজনদের ২ লাখ টাকা করে আর্থিক সহায়তার চেক প্রদান * ফরিদপুরে ডিমের বাজারে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের অভিযান, জরিমানা * এএসপি মহররম ছাত্রদলের কর্মী ছিলেন: এমপি শম্ভু * কেরানীগঞ্জে বিদ্যুৎপৃষ্ঠে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু * ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মামলায় বেকসুর খালাস সাংবাদিক * বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের আশ্রয়দানকারী দেশগুলোর সমালোচনায় প্রধানমন্ত্রী * যাত্রাবাড়ীতে আওয়ামী লীগ নেতা খুন *

  • আজ বুধবার, ২ ভাদ্র, ১৪২৯ ৷ ১৭ আগস্ট, ২০২২ ৷

মুই মরি যাং, মোক তোমরা বাঁচান!


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ১২, ২০২২ দেশের খবর

ফয়সাল শামীম,স্টাফ রিপোর্টার: মুই মরি যাং, মোক বাঁচান। মোর স্বামী হাসপাতালত। কখন কি হয় ঠিক নাই। তোমরা মেক দয়া করো। একটা ঈদ গেইল আমারা ঘর থাকি বের হবার পারিনাই।

কাঁদতে কাঁদতে মমেনাে বলেন, ‘আমার পরিবারটা ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। কেউ মোক দয়া করো। আমার চালা বাড়ি নাই মানুষের বাড়িত থাকি কোন রকমে বাঁচি আছি।

বলছিলাম, কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার ভিতরবন্দ ইউনিয়নের জোকমারী গ্রামের মমেনা বেগমের কথা।

মাত্র ১৩ দিন আগে নিজের থাকার ঘর জায়গাসহ বিক্রি ও লোন করে ভাগ্য বদলের আশায় একটি অটো রিকশা কেনেন মমেনা বেগম ও আবুল হোসেন। কিন্তু সে অটোটি চুরি হয়ে যায়। এখন পরিবারটির সম্বল শুধু কান্না!

জানা যায়, অনেক কষ্টে অটো রিকশাটি ১ লক্ষ ৯৮ হাজার টাকা দিয়ে কেনেন তারা। অটো রিকশাটি কিনতে গিয়ে তাদের বিক্রি কর হয় নিজের বসবাস করা চালাবাড়ির ২ শতক জায়গা। আরও করতে হয় এনজিও আরডিআর থেকে লোন এবং বোনের কাছে টাকা ধার।

এরপর নতুন অটোটি নিয়ে তাদের ছেলে কুড়িগ্রামে ভাড়া খাটতে গিয়ে পড়ে বিপত্তিতে। ৩ জন মানুষ প্রতারনা করে অটোটি নিয়ে কৌশলে ভেগে যায়। আর এ খবর পাওয়ার পরে পর পর দুইবার হার্ট এ্যাটাক করেন দরিদ্র আবুল হোসেন। তার বউ মমেনাও চিন্তায় চিন্তায় অসুস্থ হয়ে পড়েন।

ইতিমধ্যে মমেনার স্বামী আবুল হোসেন ২ বার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছে। এখনও তিনি হাসপাতালে। এখন লোনের চাপে তারা বাড়ি থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

এ ব্যাপারে মমেনা বেগমের সঙ্গে কথা হলে, তিনি কাঁদতে কাঁদতে বলেন, আল্লাহছাড়া আমাক বাঁচার কেউ নাই। আল্লাহ যদি উপলক্ষ হিসেবে কাউকে পাঠায় তাহলে মুই সারাজীবন নামাজ পড়ি আচল বিছি দিয়া তার জন্য দোয়া করিম। আর আল্লাহ রহমত যদি না করে উছিলা হিসেবে যদি কাউকে না পাঠায় তাহলে মরা ছাড়া কোন উপায় আর থাকবে না।

পরিবারটিকে বাঁচাতে সমাজের হৃদয়বান বিত্তবানরা এগিয়ে আসবেন আমনটাই আশা ভুক্তভোগি পরিবারটির।

পরিবারটির সাথে যোগাযোগ করতে তাদের মোবাইল;-০১৭১৭১৬৪৫৭৪ (বিকাশ)

ভিডিও কলে তাদের দেখতে ফয়সাল শামীম,স্টাফ রিপোর্টার -০১৭১৩২০০০৯১।