🕓 সংবাদ শিরোনাম

গাজীপুরে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ৬ ডাকাত গ্রেফতার * নূর হোসেনের বিরুদ্ধে আরও এক অস্ত্র-মাদক মামলার বিচার শুরু * আলোচিত সবুজ হত্যা: ফরিদপুরে ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের সভাপতিকে গ্রেফতারের দাবী * নারায়ণগঞ্জে যৌতুকের মামলায় আইনজীবী গ্রেফতার * হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ ইউপি কার্যালয় হয়ে গেল ‘সৌদি দূতাবাস’! * ত্রিশালে ফিসারীতে বিষ প্রয়োগ করে ৫০ লক্ষ টাকার মাছ নিধন * রংপুরে গৃহবধুকে অপহরণ মামলায় অপহরণকারীর যাবজ্জীবন কারাদন্ড * বাহুবলে পরিমাপে কম দেওয়ায় দুই পেট্রল পাম্পকে জরিমানা * আলোচিত সেই শিশুকে এক মাসের মধ্যে ৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণের নির্দেশ * বাঙালির মর্যাদা প্রতিষ্ঠার সম্পূর্ণ দায়িত্ব নিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু: আইনমন্ত্রী *

  • আজ সোমবার, ২৪ শ্রাবণ, ১৪২৯ ৷ ৮ আগস্ট, ২০২২ ৷

৮টার পর দোকান বন্ধের নির্দেশ না মানায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ১৯, ২০২২ প্রধান খবর

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক: রাত ৮টার পর দোকানপাট, শপিংমল খোলা থাকলে তাদের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার যে ঘোষণা বিদ্যুৎ বিভাগ দিয়েছিল তা বাস্তবায়নে সোমবার (১৮ জুলাই) থেকেই অভিযান শুরু করেছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ডিপিডিসি)।

সোমবার রাত ৮টার পর রাজধানীর বায়তুল মোকাররম, দৈনিক বাংলা, পল্টন, ফকিরাপুলসহ বেশ কিছু এলাকায় অভিযান চালায় ডিপিডিসির টিম। তারা প্রথমে মাইকে লাইট বন্ধ করার অনুরোধ করেন। এরপরও যারা বন্ধ করেনি তাদের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় ডিপিডিসি।

অভিযানে বিষয়ে জানতে চাইলে ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকাশ দেওয়ান বলেন, আমরা প্রত্যেক জোনকে জানিয়েছি রাত ৮টার পর গাড়ি নিয়ে টহল দিতে। প্রথমে অনুরোধ করা হবে, না মানলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সোমবার বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, রাত ৮টা থেকে কোনোরকম দোকানপাট, শপিংমল, আলোকসজ্জা-সব বন্ধ থাকবে। বিশেষ করে বিদ্যুৎ বিভাগকে বলা হয়েছে, তারা খুব কঠিনভাবে এ বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করবেন। যদি কেউ অমান্য করেন তাদের বিদ্যুতের লাইন আমরা বিচ্ছিন্ন করে দেবো।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, অফিস সময়ের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। এটা নিয়ে এখনো পুরোপুরি সিদ্ধান্ত হয়নি। এটা নোটিশ আকারে যাবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকার তেলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে আমাদের হয়তো দিনে এক থেকে দেড় হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের ঘাটতি হবে। সেই ঘাটতি মেটাতে এলাকাভিত্তিক এক ঘণ্টার মতো লোডশেডিং করা হবে।

তিনি আরও বলেন, আমরা এক সপ্তাহ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে দেখব। যদি এতেই আমাদের সাফিসিয়েন্ট মনে হয়, তাহলে তো সমস্যা নেই। নইলে আরও এক ঘণ্টা পর্যন্ত লোডশেডিং করা হতে পারে। এর পাশাপাশি আমাদের সবাইকে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে।