🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ মঙ্গলবার, ২৫ শ্রাবণ, ১৪২৯ ৷ ৯ আগস্ট, ২০২২ ৷

স্ত্রীকে ফেরাতে কবর খুঁড়ে স্বামীর আল্টিমেটাম


❏ শনিবার, জুলাই ২৩, ২০২২ দেশের খবর

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: রাগ করা স্ত্রীকে ঘরে ফেরাতে ব্যর্থ হয়ে নিজ ঘরেই কবর খুঁড়ে স্ত্রীকে ফেরত আসার আল্টিমেটাম দিলেন স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে বরগুনা সদর উপজেলার আয়লা ইউনিয়নের কদমতলা এলাকায়।

খবর পেয়ে শুক্রবার (২২ জুলাই) বিকেল ৫টার দিকে গ্রাম পুলিশ ও স্থানীয় জনতা কবর খোঁড়া বন্ধ করান। ঘটনাটি চাঞ্চল্য তৈরি করলে গ্রাম ও আস পাশের গ্রামের মানুষ ভিড় করতে শুরু করে।

আয়লা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ সাইফুল ইসলাম জানান, প্রায় এক যুগের সংসার জাফর ও হাজেরার। তাদের সংসার জীবনে প্রায় নানা বিষয় নিয়ে ঝগড়া চলে আসছিলো। বর্তমানে এ বিষয়ে ইউনিয়ন পরিষদে সালিশ চলমান। তারা দু’জনেই এক মাস ধরে আলাদা থাকেন। নিজ ঘরেই কবর খোঁড়ার সংবাদ পেয়ে তিনি দ্রুত ছুটে গিয়ে জাফরকে কবর খোঁড়া থেকে বিরত রাখেন এবং পুলিশকে অবহিত করেন।

জাফর গাজী জানান, ১৩ বছর আগে ঢাকায় বিয়ে হয় তার স্ত্রী হাজেরার সঙ্গে। বিয়ের পর থেকেই হাজেরা তার কথার অবাধ্য হয়। এ নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা একাধিক সালিশ করলেও হাজেরা তা মানছে না। সবশেষ ২২ জুন বুধবার তার সাথে রাগ করে হাজেরা তার চায়ের দোকানে বসবাস শুরু করে। তাকে দোকান থেকে ঘরে ফেরত আনার একাধিক চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে এখন নিজের কবর নিজেই খুঁড়তে শুরু করেছেন তিনি।

এ বিষয় জাফরের স্ত্রী হাজেরার স্ত্রীর রয়েছে ভিন্ন অভিযোগ, তিনি জানান, ১৩ বছর আগে বিয়ের সময় তার সাথে প্রতারণা করেছে জাফর। জাফরের আগের স্ত্রীকে তালাক না দিয়েই মিথ্যা তালাকনামা তৈরি করে তা দেখিয়ে বিয়ে করেন তাকে। এ সব নিয়ে ঝগড় ও ঝামেলা শুরু হলে গ্রামে চলে আসেন তারা। বর্তমানে সংসারে অমনোযোগী হওয়ায় প্রায় সময় ঝগড়া চলে আসছে তাদের মধ্যে। ২২ জুন বুধবার তাকে ঘর থেকে বের করে দিলে সে আলাদা দোকানের মধ্যে থাকা শুরু করেন। এখন সে জাফরের সাথে আবারো সংসার জীবন শুরু করতে কোনক্রমেই রাজি না।

স্থানীয় ইউপি সদস্য কাজি মোখলেচুর রহমান জানান, মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে জাফর যাতে কোন অঘটন না ঘটাতে পারে সে জন্য ঘর থেকে গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে কদম তলা বাজারে নিয়ে আসা হয়েছে জাফরকে। পুলিশকে খবর দেওয়া হয়েছে, পুলিশ পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

বরগুনা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলী আহম্মেদ জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি আইনগতভাবে দেখা হবে।