🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ মঙ্গলবার, ২৫ শ্রাবণ, ১৪২৯ ৷ ৯ আগস্ট, ২০২২ ৷

ক্রীড়াঙ্গনে ঈর্ষনীয় সাফল্য অর্জন করেছে বাংলাদেশ: এনামুল হক শামীম

Gazipur news
❏ শুক্রবার, জুলাই ২৯, ২০২২ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক: পানি সম্পদ উপ-মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম এমপি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সমৃদ্ধ ক্রীড়াঙ্গনের স্বপ্ন দেখেছিলেন। তাঁর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পৃষ্ঠপোষকতায় দেশের ক্রীড়াঙ্গন সমৃদ্ধ ও সম্প্রসারিত হয়েছে। ক্রীড়াঙ্গনে ঈর্ষনীয় সাফল্য অর্জন করেছে বাংলাদেশ। তাই সুস্থ সমাজ গঠনে খেলাধুলার বিকল্প নেই।

আজ বিকালে শরীয়তপুরের নড়িয়ার বিঝারী উপসী তারাপ্রসন্ন উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে স্কুল মাঠে আয়োজিত শেখ রাসেল ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

উপ-মন্ত্রী শামীম বলেন, খেলা যেমন মানুষের মনকে সুন্দর রাখে, তেমনি জীবনের চলার পথটা করে দেয় সুন্দর। সুস্থ দেহ থাকলে, একটা সুস্থ মনও থাকবে। এই মন আর এদিক-ওদিক যাবে না। এখন সমাজে একটা সাংঘাতিক অসুস্থতা দেখা যাচ্ছে। এই যেমন জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদকাসক্তি-মানুষের মন-মানসিকতা একেবারেই নষ্ট করে দিচ্ছে। সমাজকে কলুষিত করে দিচ্ছে। এখান থেকে আমাদের যুব-সমাজকে ফিরিয়ে আনতে হবে। এ জন্য খেলাধুলার বিকল্প নেই।

এনামুল হক শামীম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রাথমিক শিক্ষা থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত শিক্ষার মানোন্নয়নে কাজ করে চলছেন। তিনি প্রতিটি উপজেলা শহরে থাকা মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে সরকারিকরণ করছে। তিনি প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করেছেন। তেমনি বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গীনকে সমৃদ্ধ করতে বিশ্বমানের ক্রীড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও ক্রীড়াবিদ গড়ে তোলা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন; আমরা দেখতে পাচ্ছি একটি সুস্থ সমাজ গড়তে শিক্ষার পাশাপাশি ক্রীড়ার বড় অবদান রয়েছে। এখন ছেলেমেয়েরা মাঠে ক্রিকেট, ফুটবল, ভলিবলসহ বিভিন্ন খেলাধুলা করছে। যা আমাদের জন্য ভালো খবর। গত ১৩ বছর আগে দেশে খেলাধুলা তেমন হতো না। কিন্তু আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে ব্যাপক পদচারণা আমরা দেখতে পাচ্ছি। আন্তজেলা ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত থেকে খেলোয়াড় ও সংগঠকদের উৎসাহিত করছেন। যা অতীতের কোনো সরকার বা রাষ্ট্রপ্রধানদের উপস্থিতি আমরা দেখি নাই।

উপমন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রতিটি উপজেলায় খেলাধুলার পরিবেশ তৈরি করার জন্য শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম তৈরি করে দিয়েছেন। জেলা পর্যায়ের স্টেডিয়ামগুলোর আধুনিকায়ন হচ্ছে। বিভাগীয় পর্যায়ে হচ্ছে। একটা সময় ছিল একই স্টেডিয়ামে সব খেলা হতো, এখন কিন্তু সেই অবস্থা নাই। এখন বিভিন্ন ধরনের খেলাধুলার জন্য আলাদা আলাদা স্টেডিয়াম তৈরি করা হচ্ছে। ক্রীড়া অনুরাগী রাষ্ট্রপ্রধান থাকার কারণে এটা সম্ভব হয়েছে।

বিঝারী উপসী তারা প্রসন্ন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও টূর্নামেন্ট কমিটির সভাপতি শেখ নুরুল আমিন রতনের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মো. আক্তারুজ্জামান জীবুলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুল হক মাল, সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান খোকন, ভোজেশ্বর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আলী আহম্মেদ সিকদার।

টূর্নামেন্টের পৃষ্ঠপোষকতা করেন, লন্ডন প্রবাসী আওলাদ হোসেন মিঠু সর্দার, নড়িয়া ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সবুজ মুন্সী, ইতালী প্রবাসী নূরুল আমিন শেখ প্রমূখ।