🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ মঙ্গলবার, ২৫ শ্রাবণ, ১৪২৯ ৷ ৯ আগস্ট, ২০২২ ৷

স্বামীর বয়স নিয়ে কথা উঠবে আগেই জানতাম: পূর্ণিমা


❏ সোমবার, আগস্ট ১, ২০২২ বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক: গত ২৭ মে পারিবারিকভাবে বিয়ে করেন চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা। স্বামী আশফাকুর রহমান ঢাকার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত। বিয়ের ২ মাস পর ২১ জুলাই সন্ধ্যায় চিত্রনায়িকা নিজেই বিয়ের খবরটি জানান সবাইকে। নতুন সংসারে সুখেই সময় কাটছে পূর্ণিমার। স্বামী ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে আনন্দঘন পরিবেশে আছেন তিনি।

সব ঠিক থাকলেও তার ফের বিয়ের পিঁড়িতে বসাটা ভালোভাবে নিচ্ছেন না নেটিজেনরা। চলছে আলোচনা ও সমালোচনা। কিন্তু এসবে পাত্তা দিচ্ছেন না তিনি। সংবাদমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানালেন সে কথা।

বিয়ে নিয়ে নেতিবাচক আলোচনা প্রসঙ্গে পূর্ণিমা বলেন, যেকোনো ঘটনা কিংবা বিষয়ে মানুষের ইতিবাচকের পাশাপাশি নেতিবাচক কর্মকাণ্ড দেখা যায়। এটা সবসময়ই হয়। আমি সেসব নিয়ে মোটেও ভাবি না।

বিয়ে করে খারাপ কিছু করেননি উল্লেখ করে এই অভিনেত্রী আরো বলেন, আমি তো নেতিবাচক কাজ করিনি। তাই কোনো ধরনের সমালোচনা গুরুত্ব দিচ্ছি না। যারা নিন্দুক, তারা সব সময় নিন্দাই করবেন। তার জন্য কি থেমে থাকব? মোটেও না।

এদিকে নিজের বর্তমান স্বামীর বয়স নিয়ে সমালোচনার বিষয়ে পূর্ণিমা বলেন, ‘এটার জন্য আগে থেকে প্রস্তুত ছিলাম আমি। জানতাম, বিয়ের পর স্বামীর বয়স নিয়ে কথা উঠবে। যারা এসব লেখেন, না লিখতে পারলে তারা ভালো থাকবেন না। না লিখতে পারলে তাদের মন খিটখিট করবে। আমাকে দুই–তিনটা গালি দিতে না পারলে উল্টা পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ঝগড়াঝাটি করবেন তারা। আমাকে নিয়ে এভাবে গালাগালি করে যদি তাদের শান্তি লাগে, আমি খুশি।’

নিন্দুকদের শান্তি-সুখ কামনা করে পূর্ণিমা আরও বলেছেন, ‘আমার ছবি পোস্ট করে দু-চারটা গালি দিক, তাতে আমার কোনো সমস্যা নেই। তবু তারা শান্তিতে থাক, সুখে থাক, সুস্থ থাক। তাদের জন্য আমাদের দুজনের পক্ষ থেকে শুভকামনা।’

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে কাজের সূত্রে আশফাকুর রহমান রবিনের সঙ্গে পরিচয় হয় পূর্ণিমার। এরপর আলাপে আলাপে তাদের বন্ধুত্ব ও প্রেম হয়। সেটাকেই বিয়েতে পূর্ণতা দিয়েছেন নায়িকা।

এর আগে আহমেদ ফাহাদ জামাল নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে দীর্ঘ প্রায় এক যুগ সংসার করেছেন পূর্ণিমা। তাদের একটি কন্যাসন্তানও রয়েছে। বছর তিনেক আগে ফাহাদের সঙ্গে পূর্ণিমার বিচ্ছেদ হয়েছে।