🕓 সংবাদ শিরোনাম

রাত গভীরে ঘরের জানালা ভেঙে কিশোরীকে ধর্ষণ, আটক অভিযুক্ত বখাটে * ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে চাঁদা আদায়, অভিযোগে আটক প্রেমিকসহ দুই যুবক * প্রবাস থেকে ভিডিওকলে প্রেমিকার চোখের সামনে যেভাবে আগুনে পোড়েন প্রবাসী যুবক! * চকবাজারের অগ্নিকান্ডে নিহতদের স্বজনদের ২ লাখ টাকা করে আর্থিক সহায়তার চেক প্রদান * ফরিদপুরে ডিমের বাজারে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের অভিযান, জরিমানা * এএসপি মহররম ছাত্রদলের কর্মী ছিলেন: এমপি শম্ভু * কেরানীগঞ্জে বিদ্যুৎপৃষ্ঠে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু * ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মামলায় বেকসুর খালাস সাংবাদিক * বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের আশ্রয়দানকারী দেশগুলোর সমালোচনায় প্রধানমন্ত্রী * যাত্রাবাড়ীতে আওয়ামী লীগ নেতা খুন *

  • আজ বুধবার, ২ ভাদ্র, ১৪২৯ ৷ ১৭ আগস্ট, ২০২২ ৷

ফরিদপুরে দুই সহোদরকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম

Faridpur news
❏ শনিবার, আগস্ট ৬, ২০২২ ঢাকা

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় দুই সহোদরকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

শনিবার (৬ আগস্ট) দুপুরে সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শেখ সাদিক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে শুক্রবার (৫ আগস্ট) দিনগত রাত ৮টার দিকে উপজেলার গট্টি ইউনিয়নের সিংহপ্রতাব গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- উপজেলার সিংহপ্রতাপ গ্রামের মৃত শাহিদ শিকদারের ছেলে দেলোয়ার শিকদার (৫০) ও জিয়া শিকদার (৩৫)। পুলিশ তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তির জন্য পাঠান। তারা এখন ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি।

আহত দেলোয়ার শিকদার অভিযোগ করে বলেন- প্রতিপক্ষের জব্বার খালাসী, সুজাদ খালাসী ও কাসেম খালাসী দীর্ঘদিন ধরে আমার কাছে চাঁদা দাবী করে আসছিল। তারা সবাই সাবেক ইউপি সদস্য ইব্রাহিম মোল্যার সমর্থক। আমি টাকা দিতে রাজি না হলে আমার উপর ক্ষিপ্ত হয় ওরা। শুক্রবার রাতে হঠাৎ এসে তারা আমাকে ৫ হাজার টাকা দিতে বলে। দাবিকৃত টাকা না দেওয়ায় তারা লোকজন নিয়ে এসে আমাদের দুই ভাইয়ের ওপর হামলা চালায়। তারা আমাকে রামদা দিয়ে পায়ে কোপ দেয় ও আমার ভাই জিয়াকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে ফেলে।

তিনি আরও বলেন, শুধু আমাদের কুপিয়ে আর পিটিয়ে আহত করে ক্ষ্যন্ত হয়নি তারা। আমাদের ওপর হামলার পর হামলাকারীরা আমাদের বাড়ির চারপাশ ঘিরে রাখে। আমাদের হাসপাতালেও নিতে দেয় না। পরে ওসি স্যার এসে আমাদের উদ্ধার করে তার পকেটের টাকা দিয়ে এ্যাম্বুলেন্স ঠিক করে হাসপাতালে পাঠায়।

এদিকে হামলাকারীদের হাত থেকে আহতদের উদ্ধার করে নিজের পকেটের টাকা দিয়ে এ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে তাদের হাসপাতালে পাঠানোয় ওসি ব্যাপক প্রশংসা করেন স্থানীয়রা। তারা বলেন, ওসি সাহেব একটি ভাল কাজ করেছেন, যা সত্যি প্রশংসনীয়।

তবে দেলোয়ারের অভিযোগ অস্বীকার করে সাবেক ইউপি সদস্য মো. ইব্রাহিম মোল্যা বলেন, কেউ কারো কাছে চাঁদা দাবী করেনি। এটা কোন পরিকল্পিত ঘটনাও নয়। পাওনা টাকা চাওয়ার জেরধরে ঝামেলা হয়েছে। জব্বার খালাসী দেলোয়ারের ছেলে সাকিলের কাছে ৫ হাজার টাকা পাবে। সেই টাকা কয়েকবার চাইলেও ফেরত দেয়না সে। পরে বিষয়টি নিয়ে সালিশ হলে মাত্র এক হাজার টাকা ফেরত দেয়। বাকি টাকা নিয়ে ঘুরাঘুরি করতেছিল। শুক্রবার রাতে ওই টাকা চাওয়া নিয়ে জব্বার আর সাকিলের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে দুই পরিবারের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে দেলোয়ার আর জিয়া আহত হয়।

সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শেখ সাদিক বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেই। পাশাপাশি আহতদের উদ্ধার করে আমার নিজের টাকা দিয়ে গাড়ি ঠিক করে হাসপাতালে পাঠাই। এ ঘটনায় অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।