এইমাত্র
  • বানর থেকে মানুষের তথ্য, পাঠ্যবইয়ের কোথাও নেই: শিক্ষামন্ত্রী
  • সন্তানের অভিভাবক হিসেবে মায়ের স্বীকৃতি দিলেন হাইকোর্ট
  • ভাষা শহীদদের সম্মানে বাংলায় রায় দিলেন হাইকোর্ট
  • তুরস্ক-সিরিয়ায় ভূমিকম্পে মৃত্যু বেড়ে প্রায় ৫ হাজার
  • উপহারের গাড়ি আনতে হবিগঞ্জে যাচ্ছেন হিরো আলম
  • গভীর রাতে ছাত্রলীগ নেতাকে পিটুনি
  • সেই রনি এখন চা বিক্রেতা!
  • তুরস্ক-সিরিয়া সীমান্তে ভূমিকম্প: নিহতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৩শ’
  • পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু খোলা সেই বায়েজিদের জামিন
  • তুরস্কে ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়াতে পারে
  • আজ মঙ্গলবার, ২৫ মাঘ, ১৪২৯ | ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

    সোনারগাঁয়ে আ’লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে কর্মী সম্মেলন পন্ড, আহত ৩০

    সময়েরকণ্ঠস্বর প্রকাশ: ২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:০৬ পিএম
    সময়েরকণ্ঠস্বর প্রকাশ: ২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:০৬ পিএম

    সোনারগাঁয়ে আ’লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে কর্মী সম্মেলন পন্ড, আহত ৩০

    সুমন মিয়া, নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কর্মী সম্মেলন চলাকালে উষ্কানীমূলক বক্তব্যের জের ধরে সংর্ষষের ঘটনা ঘটেছে। 

    বুধবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় ৩০ জন আহত হয়। শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক মোল্লা ও গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মনোনীত প্রার্থী নাসিরউদ্দিনের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

    আহতদের মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতাল ও নারায়ণগঞ্জ খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষের পর কর্মী সম্মেলন স্থগিত করে অতিথিরা। আহতদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা যায়। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। কর্মী সম্মেলনের চেয়ার টেবিল ও স্টেজ ভাংচুর করে উত্তেজিত নেতাকর্মীরা।

    জানা যায়, সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠনের লক্ষ্যে উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করে সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগ।  বুধবার বিকেলে শম্ভুপুরা ইউনিয়নের এলাহী নগর ঈদগাহ মাঠে এই কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক মোল্লার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া। বিশেষ অতিথি ছিলেন, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ আবদুল্লাহ আল কায়সার, সিনিয়র সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম। এছাড়াও আওয়ামীলীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতারা অতিথি ছিলেন। 

    কর্মী সম্মেলন চলাকালীন সময়ে সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক মোল্লা তার স্বাগত বক্তব্যে বলেন গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী নাসিরউদ্দিনকে মনোনয়ন দেওয়া আওয়ামীলীগের ভুল সিদ্ধান্ত ছিল। ফলে গত নির্বাচনে এ ইউনিয়নের নৌকার ভরাডুবি হয়। এছাড়াও নাসিরউদ্দিনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রকার বিরূপ মন্তব্য করে বক্তব্য দেওয়ার কারণে নাসিরউদ্দিন সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। এতে স্টেজের ভেতরে উভয় পক্ষের কর্মীদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে চেয়ার ছুড়াছুড়ি শুরু হয়।

    পরবর্তীতে আবু বকর সিদ্দিক মোল্লার সমর্থকরা লাঠিসোটা নিয়ে নাসিরউদ্দিন সমর্থকদের ওপর হামলা করে। এসময় উভয় পক্ষের নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে নাসিরউদ্দিন পক্ষের জান্নাত বেপারী, সোহেল, আরিফ, আরমান, শরীফ, আল আমিন, রাজিম, নাজমুল ও শামীমসহ ২০জন ও আবু বকর সিদ্দিক মোল্লার পক্ষের আনিছুর রহমান শামীম, নজরুল ইসলাম, বাবু মোল্লা, জাহাঙ্গীর, মিন্টু. সুজন, মোয়াজ্জেম, শহীদ ও বাবলুসহ ১০ জন আহত হয়।

    আহতদের মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতাল ও নারায়ণগঞ্জ খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে নাসিরউদ্দিন পক্ষের জান্নাত মোল্লা ও রিফাত নামের দু’জনের অবস্থা আশংকাজনক।

    শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে এ ইউনিয়নের সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক মোল্লা ও নৌকার প্রতীকে মনোনীত প্রার্থী নাসিরউদ্দিনের মধ্যে দ্বন্ধ চলছিল। আবু বকর সিদ্দিক মোল্লাও বিগত নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যশী ছিলেন। এ ইউনিয়নে আগামী কমিটিতে দু’জনেরই সভাপতি প্রার্থী। ফলে তাদের মধ্যে দ্বন্ধ চরমে উঠে।

    শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রার্থী নাসিরউদ্দিন বলেন, তিনি কর্মী সম্মেলনে প্রায় দু হাজার নেতাকর্মী নিয়ে অংশ নেন। এ ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক মোল্লা আমাকে নিয়ে উষ্কানীমূলক বক্তব্য দেয়। এসয়ম নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এসময় উভয় পক্ষের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়।

    শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক মোল্লা বলেন, আমার স্বাগত বক্তব্যে এ ইউনিয়নের নৌকার পরাজয়ের কারণ তুলে ধরার সঙ্গে সঙ্গে নাসিরউদ্দিনের নেতাকর্মীরা চেয়ার ছুড়াছুড়ি শুরু করে। এ নিয়েই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে আমার সমর্থকরাও আহত হয়েছেন।

    সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ আবদুল্লাহ আল কায়সার বলেন, সংঘর্ষের কারণে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কর্মী সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে। দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দোষীদের চিহ্নিত করে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ আহসানউল্লাহ বলেন, কর্মী সম্মেলনের পুলিশ মোতায়েন ছিল। হঠাৎ সংঘর্ষের কারণে নিয়ন্ত্রন নেওয়া সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। এখন পর্যন্ত কোন পক্ষ অভিযোগ দায়ের করেনি।

    ট্যাগ :

    সম্পর্কিত:

    {{post.title}}

    {{ post.description | stripHTML | truncate(90, '...')}}

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত