এইমাত্র
  • স্বামীকে পিটিয়ে হত্যার দায়ে স্ত্রীর যাবজ্জীবন
  • উলিপুরে গুড়িয়ে দেওয়া হলো ৩টি অবৈধ ইটভাটা, জরিমানা ১২ লাখ টাকা
  • বাগেরহাটে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড
  • যশোরের শার্শায় মাদক মুক্ত ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে র‍্যালী
  • রাজধানীর ৪ হাসপাতালে র‍্যাবের অভিযান, ৩৬ দালাল আটক
  • 'রমজানে নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার'
  • রোজায় অফিস চলবে সকাল ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত
  • রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পেলেন শার্শা থানার ওসি মনিরুজ্জামান
  • পিরোজপুরে আলোচিত এহ্সান গ্রুপের কর্মচারী গ্রেপ্তার
  • সিলেটে পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত
  • আজ বৃহস্পতিবার, ১৫ ফাল্গুন, ১৪৩০ | ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
    তথ্য-প্রযুক্তি

    ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি সময় দেওয়া মানুষের তালিকায় বাংলাদেশ ৩য়

    সময়ের কণ্ঠস্বর প্রকাশ: ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০১:৫৪ এএম
    সময়ের কণ্ঠস্বর প্রকাশ: ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০১:৫৪ এএম

    ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি সময় দেওয়া মানুষের তালিকায় বাংলাদেশ ৩য়

    সময়ের কণ্ঠস্বর প্রকাশ: ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০১:৫৪ এএম

    যে তিনটি দেশের মানুষ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি সক্রিয় থাকেন, তার একটি বাংলাদেশ। এ তালিকায় বাংলাদেশ ছাড়াও আরও রয়েছে ভারত ও ফিলিপাইন।

    বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে ফেসবুকের মূল প্রতিষ্ঠান মেটা এই তথ্য জানায়।

    সংস্থাটির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০২২ সালের ডিসেম্বরে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ২০০ কোটি মানুষ একবার হলেও ফেসবুকে প্রবেশ করেছেন। সবচেয়ে বেশি ব্যবহারকারী প্রবেশ করেছে বাংলাদেশ, ভারত ও ফিলিপাইন থেকে।

    ২০২১ সালের ডিসেম্বরে ফেসবুকে দৈনিক গড় ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ১৯৩ কোটি। সেই বছরের তুলনায় গত ডিসেম্বরে এই সংখ্যা বেড়েছে ৭ কোটি। যা প্রায় চার শতাংশ বেশি। মেটা বলছে, মূলত এই তিনটি দেশের নাগরিকদের জন্যই ফেসবুকের গড় ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে।

    মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারীর তালিকাও প্রকাশ করেছে মেটা। এই তালিকায়ও শীর্ষ তিনে রয়েছে বাংলাদেশ। শীর্ষ তালিকায় থাকা অন্য দুটি দেশ ভারত ও নাইজেরিয়া।

    প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২২ সালের ডিসেম্বরে বাংলাদেশ, ভারত ও নাইজেরিয়ার নাগরিকরা সবচেয়ে বেশি ফেসবুক ব্যবহার করেছেন। এ ছাড়া ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালের ডিসেম্বরে ফেসবুকের সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যা ২ শতাংশ বেড়েছে।

    এই প্রতিবেদনের মেটা আরও জানিয়েছে, ভারত ও তুরস্কের মতো কিছু দেশ ডাটা নিয়ন্ত্রণ শর্ত, স্থানীয় স্টোরেজ এবং প্রসেসিংয়ে বিধিনিষেধ বা এ ধরনের কোনো ব্যবস্থা কার্যকরের শর্ত দিয়েছে বা কার্যকরের পরিকল্পনা করছে। ফলে এসব দেশে মেটার স্বাভাবিক সেবা ও কার্যক্রম বিঘ্নিত হচ্ছে বা কার্যক্রম চালানোর ব্যয় বৃদ্ধি পাচ্ছে। শর্তের কারণে কিছু দেশে ?নির্দিষ্ট সেবা স্থগিত? করে দিতে বাধ্য হচ্ছে তারা। কিংবা ভোগ করতে হচ্ছে জরিমানা বা অন্যান্য শাস্তি।

    মেটার জন্য ২০২২ সাল ছিল খারাপ একটি বছর। গত বছরের নভেম্বরে প্রতিষ্ঠানটি ঘোষণা দেয়, তারা প্রতিষ্ঠানের মোট ১১ হাজার বা ১৩ শতাংশ কর্মীকে ছাঁটাই করবে। প্রতিষ্ঠানটির ইতিহাসে কখনো একসঙ্গে এত বেশি কর্মী ছাঁটাই করা হয়নি।

    মেটার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ বলেন, ?২০২৩ সালে আমার প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনার প্রতিপাদ্য হচ্ছে ?দক্ষতার বছর?। আমরা আরও শক্তিশালী ও গতিময় প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিজেদের গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছি।?

    জাকারবার্গ বলেন, 'ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপে দৈনিক ব্যবহারকারী যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি।'

    গত বছর মেটা বিনিয়োগকারীদের সতর্ক করে বলেছিল, ফেসবুকে এই প্রথম দৈনিক ব্যবহারকারী কমছে। তারা ইঙ্গিত দিয়েছিল, মেটা এখন মেটাভার্স হিসেবে পরিচিত ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটিতে বিনিয়োগে গুরুত্ব দিচ্ছে।

    তবে গত ডিসেম্বরে বছরের প্রথম দিকের তুলনায় দৈনিক ব্যবহারকারী ৪ শতাংশ বেড়েছে। ইউরোপের দেশ, যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডায়ও ব্যবহারকারী বেড়েছে।

    মেটা বলেছে, তাদের সব অ্যাপে সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যাও বেশ বেড়েছে।

    ট্যাগ :

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…