এইমাত্র
  • মিঠামইন হাওরে নিখোঁজ পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার
  • ভাইয়ের গায়ে পানি মারায় সৎ মায়ের হাতে প্রাণ গেল শিশুর
  • ‘মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা মাঠে নামলে কোটাবিরোধীরা টিকতে পারবে না’
  • বৈষম্য দূর করার জন্যেই কোটার প্রয়োজন: তথ্য প্রতিমন্ত্রী
  • এ সপ্তাহে রাজধানীতে বাড়তে পারে যানজট: ডিএমপি
  • কুমিল্লায় ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে আহত করলো দুর্বৃত্তরা
  • ‘মূল সড়কে ব্যাটারিচালিত রিকশা চালানো যাবে না’
  • বাসা থেকে দেড় কোটি টাকা চুরি, ৪ দিন পর জানা গেল মেয়েই চোর
  • ট্রাম্পের ফেসবুক-ইনস্টাগ্রামের নিষেধাজ্ঞা সরছে
  • নিজ সন্তানকে নদীতে ফেলে হত্যা: ১৩ বছর পর বাবা গ্রেফতার
  • আজ শনিবার, ২৯ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৩ জুলাই, ২০২৪
    দেশজুড়ে

    কুড়িগ্রামে শ্যালিকার বিয়েতে এসে ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু

    অনিল চন্দ্র রায়, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০:২৩ এএম
    অনিল চন্দ্র রায়, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০:২৩ এএম

    কুড়িগ্রামে শ্যালিকার বিয়েতে এসে ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু

    অনিল চন্দ্র রায়, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০:২৩ এএম

    কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে শ্যালিকার বিয়ে অনুষ্ঠানে এসে দুলাভাই (জামাইবাবু) বিকাশ চন্দ্র সরকার (৪২) নামের এক ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে। এ দূঘর্টনাটি ঘটে বাংলাদেশের উত্তরের জেলা কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের দক্ষিণ বড়ভিটা গ্রামে।

    রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) বিকালে গায়ে হলুদের দিনে বুকের ব্যাথা অনুভব হলে শ্বশুড়বাড়ীর লোকজন দ্রুত ফুলবাড়ী হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ভারতীয় নাগরিককে মৃত ঘোষনা করেছেন মেডিকেল অফিসার ডাঃ নাজমিন আক্তার।

    এ দিকে একমাত্র শ্যালিকার গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে দুলাভাইয়ের মৃত্যুর ঘটনায় বিয়ে বাড়ীসহ এলাকায় চলছে শোকের ছায়া। বাগরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন স্ত্রী শেফালী রানী ও একমাত্র শ্যালিকা কাকলী রানীসহ শ্বশুরবাড়ীর লোকজন। নিহত ভারতীয় নাগরিকের বাড়ী ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার পুন্ডীবাড়ী থানার দক্ষিণ খাপাইটারী গ্রামে। তিনি ওই এলাকার মিলন চন্দ্র সরকারের ছেলে। ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ ফুলবাড়ী হাসপাতাল থেকে রবিবার রাত ১১টার দিকে শ্বশুড়বাড়ীতে নেয়া হয়েছে।

    নিহত বিকাশ চন্দ্র রায়ের চাচা শ্বশুর ক্ষিতিশ চন্দ্র রায় ও প্রতিবেশি দাদা শ্বশুর কিশোরী চন্দ্র রায় জানান, শ্যালিকার বিয়ে উপলক্ষে গত ১৭ দিন আগে জামাই বিকাশ চন্দ্র সরকার তার স্ত্রী শেফালী রানী রায় (৩৬) ও তিন বছর বয়সী ছেলে বিবেক চন্দ্র সরকারসহ তার শ্বশড় বাড়ীতে আসেন। রবিবার বিকালে বুকের ব্যাথা অনুভব হলে তাকে দ্রুত ফুলবাড়ী হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

    তারা আরও জানান, ভাল মানুষ, বয়সও কম। বিয়ে অনুষ্ঠানে এসে এ ভাবে হঠাৎ পৃথিবী ছেড়ে চলে যাবেন এটা মানতে কষ্ট হচ্ছে। পুরো বিয়ে বাড়ীর আত্মীয়-স্বজনদের আনন্দ উৎসবটা একেবারে বিষাধে পরিনিত হলো। যেহেতু বিয়ের তিন তারিখ হয়েছে। কনের বাড়ী ও বরের বাড়ীতে সব আত্মীয়-স্বজনরা এসেছে এবং এই দুর্ঘটনার খবরটি সাথে সাথে বর-পক্ষ (নতুন আত্মীয়কে) জানানো হয়েছে। তাই তাদের সম্মতিক্রমে লগ্নমতো সোমবার রাতে বিয়ে অনুষ্ঠান সম্পূর্ণ হবে। বিয়েতে যে বর ও কনে পক্ষ যে আনন্দটা সেই আনন্দটা মাটি হয়ে গেল।

    নিহত বিকাশের স্ত্রী শেফালী রানী (৩৫) কান্না জড়িত কন্ঠে জানান, একমাত্র বোনের বিয়েতে এসে ভাল মানুষটাকে (স্বামী) হারাবো ভাবতে পারিনি। কোলে তিন বছরের দুধের শিশুটাকে বিভাবে মানুষ করবো ভগবান, তুমি একি করলে শ্যাষ পর্যন্ত মোর স্বামীকে কিরে নিলু ভগবান এভাবে বলতে বলতে স্ত্রী শেফালী বাগরুদ্ধ হয়ে হাসপালে চাচির বুকে ঘুমিয়ে পড়েন।

    নিহত বিকাশের শ্বশুড় কৃষ্ণ চন্দ্র রায় কান্নাজড়িত কন্ঠে জানান, আমার দুই সন্তান। শেফালী বড়। শেফালী ১০ বছর বয়সে ভারতের পুন্ডীবাড়ী এলাকায় দাদুর (নানা) বাড়ীতে মানুষ হয়েছে। পাঁচ বছর আগে আমার শ্বশুড় ও শ্যালকরা বড় মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। ছোট মেয়ের বিয়ে ঠিক হওয়ায় আমি আমার মেয়ে ও জামাইকে বিয়ের দুই তিন সপ্তাহ আগেই আসতে বলেছি। আমার কথা মতোই মেয়ে-জামাই ও নাতিসহ ঠিকই ছোট মেয়ের বিয়ের ১৭ দিন আগেই পার্সপোট ভিসা করে আসেন। রবিবার গায়ের হলদের দিনেই আমার মেয়ে-জামাই মৃত্যু হবে এটা মানতে পারছি না বাহে। আমার মেয়েটা কম বয়সে বিধবা হয়ে গেলো। হে ভগবান এটা কি হয়ে গেলো এখন আমার মেয়ে নাতিটার কি হবে বলেই এ ভেঙ্গে পড়েন তিনি।

    ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ তার শ্বশুড়বাড়ীতে আছে। কোন প্রক্রিয়ায় মরদেহ ভারতে যাবে বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

    এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিব্বির আহমেদ জানান, পার্সপোট ভিসা করে বাংলাদেশে আসা ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যুর বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহাদয়কে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি ফুলবাড়ী সীমান্তের লালমনিরহাট ১৫ ব্যাটালিয়নের অধীন বিজিবির সদস্যদের মাধ্যমে ভারতীয় বিএসএফকে ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ ফেরত দেওয়ার বিষয়ে রাতে জানানো হয়েছে।

    আজ সোমবার সকাল ৯টা পর্যন্ত বিএসএফের পক্ষ থেকে কোন সংবাদ পাওয়া যায়নি। তবে আশাকরছি দুপুরের মধ্যে মরদেহ ফেরত নেওয়ার বিষয়ে প্রক্রিয়া অব্যাহত আছে।

    এআই

    ট্যাগ :

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…