এইমাত্র
  • জামিনে বের হলেন সেই পাপিয়া
  • মৌলভীবাজারে নদীতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু
  • ১৪ বছর বয়সী এক মাদক কারবারি আটক, ১ লাখ ৩০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার
  • মহাকাশে ঘটতে পারে আশ্চর্যজনক ‘নোভা’ বিস্ফোরণ, দেখা মিলবে খালি চোখেই
  • দেশে নিবন্ধিত ও সক্রিয় সিম কতগুলো, জানালেন পলক
  • গাজায় নিখোঁজ ২১ হাজার শিশু
  • মতিউরকে সরিয়ে সোনালী ব্যাংকে নতুন পরিচালক নিয়োগ
  • চীনে চালু হলো বিশ্বের প্রথম এআই হাসপাতাল
  • ঈদযাত্রার ১৩ দিনে সড়কে ২৬২ প্রাণহানি
  • সাপে কাটলে করা যাবে না যে ৫ কাজ
  • আজ সোমবার, ১০ আষাঢ়, ১৪৩১ | ২৪ জুন, ২০২৪
    দেশজুড়ে

    ভোট দিয়ে জীবনের আরেকটি ঋন শোধ করলাম

    আব্দুল মান্নান, নওগাঁ প্রতিনিধি প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৭:০৩ পিএম
    আব্দুল মান্নান, নওগাঁ প্রতিনিধি প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৭:০৩ পিএম

    ভোট দিয়ে জীবনের আরেকটি ঋন শোধ করলাম

    আব্দুল মান্নান, নওগাঁ প্রতিনিধি প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৭:০৩ পিএম

    ধামুইরহাট উপজেলার মালিপাড়া গ্রামের মুনিকা হাজদা, বয়সের ভারে নুইয়ে পড়েছেন। চলাফেরা করতে হয় অন্যের সহোযোগীতায়, তবুও এসেছেন ভোট কেন্দ্রে ভোট দিতে। ভোটার আইডি অনুযায়ী তার বয়স ৮৫ বছর। গত চার বছর ধরে বিছানায় তিনি। ঠিকমত উঠা চলাফেরা করতে পারেন না। চলাফেরা করতে হয় অন্যের কাঁধে ভর করে।

    সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারী) নওগাঁ-২ আসনের জাতীয় নির্বাচনের দিন নাতনি কল্পনা বাসকের কাঁধে ভর করে ধামুইরহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসেছেন তার ভোট দিতে। ভোট প্রদান শেষ করে আবার দুই নাতনির কাঁধে ভর করে ভ্যান গাড়িতে উঠছেন তিনি।

    এসময় তার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, স্বাধীতনার পর থেকে প্রত্যেকটি ভোট দিয়ে আসছেন তিনি। বয়সের ভারে গত চার বছর ধরে সোজা হয়ে চলা ফেরা করতে পারেন না তিনি। এসময় কান্না জড়িত কন্ঠে তিনি আরো বলেন- জীবনের একটি ঋন শোধ করলাম, হয়ত এটাই আমার জীবনের শেষ ভোট। তবে বেঁচে থাকলে আবার ভোট দিব। জীবনে কখনো কোন ভোট মিস করেনি সে, ভোট দিতে পারায় আনান্দিত তিনি।

    মুনিকা হাজদার নাতনি কল্পনা বাসক বলেন, আমার দাদি গত চার বছর ধরে নিজে চলাফেরা করতে পারেনা। বাড়িতে আমি, বাবা, ভাই-বোনের সহযোগীতায় চলাফেরা করেন তিনি। দাদি কখনো কোন ভোট মিস করেনি। প্রত্যেকটা ভোট দেয়। ভোটের কয়েকদিন আগে থেকে অনুরোধ করেন তাকে ভোট কেন্দ্রে নিয়ে যেতে। তাই একটি ভ্যানগাড়ি ভাড়া করে দাদিকে নিয়ে আসছি ভোট দিতে। ভোট দিতে পারায় দাদি অনেক আনান্দিত।

    এমআর

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…