এইমাত্র
  • নিজেদের রেকর্ড ভেঙে নতুন ইতিহাস হায়দ্রাবাদের
  • জানা গেল কোরবানি ঈদের সম্ভাব্য তারিখ
  • চলতি আইপিএলে দ্রুততম শতক হাঁকালেন হেড
  • ‘রাজকুমার’র সফলতায় ভক্তদের শুভেচ্ছা শাকিবের
  • রাত ১টার মধ্যে যে সব এলাকায় ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়
  • এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ শুরু আগামীকাল
  • ওমরাহ ভিসার মেয়াদে যে পরিবর্তন আনল সৌদি আরব
  • ইরান-ইসরায়েল মধ্যকার উত্তেজনায় সৌদির অবস্থান কী?
  • নরসিংদীতে প্রকাশ্যে ইউপি সদস্যকে গুলি ও জবাই করে হত্যা
  • বড় মেয়েকে নিয়ে গোপনে বাংলাদেশ ছাড়লেন সেই জাপানি মা
  • আজ সোমবার, ২ বৈশাখ, ১৪৩১ | ১৫ এপ্রিল, ২০২৪
    প্রবাস

    ইতালিতে ইসলামিক ট্যালেন্ট শোর ফাইনাল ৬ এপ্রিল

    ইসমাইল হোসেন স্বপন, ইতালি প্রতিনিধি প্রকাশ: ২ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:১০ পিএম
    ইসমাইল হোসেন স্বপন, ইতালি প্রতিনিধি প্রকাশ: ২ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:১০ পিএম

    ইতালিতে ইসলামিক ট্যালেন্ট শোর ফাইনাল ৬ এপ্রিল

    ইসমাইল হোসেন স্বপন, ইতালি প্রতিনিধি প্রকাশ: ২ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:১০ পিএম

    ইতালিতে বেড়ে উঠা আগামী প্রজন্মকে ইসলামী শিক্ষার প্রতি আগ্রহী করে তুলতে তৃতীয়বারের মতো শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে চলছে ন্যাশনাল কাফ ইসলামিক ট্যালেন্ট শো-২০২৪।

    আগামী (৬ এপ্রিল) শনিবার জমকালো আয়োজনে অনুষ্ঠিত হবে আয়োজনের গ্রান্ড ফাইনাল ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। রোমে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে আয়োজক ন্যাশনাল কাফ এর কর্ণধার জানান, তিন শতাধিক অংশগ্রহণকারীর মধ্য থেকে ৬০জন ট্যালেন্ট প্রতিযোগি ফাইনালে অংশ নেয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। টানটান উত্তেজনাময় এ প্রতিযোগিতা শুরু হবে রমজান থেকে। পবিত্র কোরআনের জ্ঞানে পারদর্শিতা প্রদর্শনের এ মহাযুদ্ধ শেষে নির্বাচিত হবেন সেরা তিনজন।

    ইসলামী জ্ঞান চর্চার ব্যতিক্রম ধারার এমন অনুষ্ঠান আয়োজনের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও স্বপ্ন নিয়ে জানতে চাইলে ন্যাশনাল কাফ ইসলামিক ট্যালেন্ট শো এর পরিচালক মোঃ আফজাল হোসেন রোমান জানান, ইউরোপে বেড়ে উঠা মুসলিম শিশুদের ইসলামী সংস্কৃতির দিকে আকৃষ্ট করাই এই আয়োজনের মূল লক্ষ্য। পাশাপাশি তিনি ইতালির অন্যান্য শহরেও এই শো আয়োজনের কথা ভাবছেন বলেও জানান উপস্থিত সাংবাদিকদের।

    ফেব্রুয়ারীর শেষের দিকে শুরু হওয়া এই আয়োজনে রাজধানী রোমের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের ব্যাপক আগ্রহ লক্ষ্য করা গেছে। ২৩মার্চ শনিবার রোমের একটি হলরুমে চূড়ান্ত বাছাই পর্বে বিভিন্ন স্কুল ও মাদ্রাসা থেকে নির্বাচিত ইয়েসকার্ড বিজয়ী তিন শতাধিক শিশু-কিশোর অংশ নেয়।

    পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত ও ইসলামি সংগীত এই দুইটি ক্যাটাগরিতে বয়সভিত্তিক মোট ৩টি গ্রুপে চলছে এই প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতার বিচারকার্যের দায়ীত্বে রয়েছেন ইতালির বিভিন্ন মসজিদ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বরেণ্য ইসলামিক স্কলার ও শিক্ষকগণ।

    এই আয়োজন ইসলামি শিক্ষার উৎকর্ষসাধন, সম্প্রসারণ ও আধুনিকায়নে বিরাট ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন কমিউনিটির নেতারা। সেই সাথে সংশ্লিষ্ট প্রতিযোগীরা অংশ নেয়ায় এটি ট্যালেন্টদের সার্বজনীন মিলন মেলায় পরিণত হবে বলেও মনে করেন তারা।

    পবিত্র কুরআন নাজিল ও জ্ঞান চর্চার মাস মাহে রমজানে এই আয়োজন হবে গ্রহণযোগ্য ও উপভোগ্য এমনটাই মনে করছেন সকলে।

    এমআর

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…