এইমাত্র
  • জোয়ারে ভেসে যাওয়ার পর যুবকের লাশ উদ্ধার
  • পানিতে তলিয়ে গেছে ভোলার নিচু এলাকা
  • এখন একটাই কাজ, তারেক জিয়ার সাজা বাস্তবায়ন: প্রধানমন্ত্রী
  • চোখ’ ফুটেছে ঘূর্ণিঝড় রেমালের, ব্যাপক তাণ্ডবের আশঙ্কা
  • বেঁচে যাওয়া বাছুরটিই বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ষাঁড়
  • সাভারে ডেইলি স্টারের সাংবাদিকের ‍উপর হামলা
  • স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশকে সহযোগিতার আশ্বাস ডব্লিউএইচওর
  • প্লাবনের তোড়ে বাঁধ ভেঙে রাঙ্গাবালীর ২০ গ্রাম প্লাবিত
  • এবার বেনজীরের কোম্পানি-ফ্ল্যাট ক্রোকের নির্দেশ
  • পেনশন প্রজ্ঞাপন বাতিলের দাবিতে যবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন
  • আজ রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ২৬ মে, ২০২৪
    দেশজুড়ে

    উপজেলা নির্বাচন

    বেসরকারি ফলে জয়ী হলেন যারা

    ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট প্রকাশ: ৮ মে ২০২৪, ১১:৩২ পিএম
    ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট প্রকাশ: ৮ মে ২০২৪, ১১:৩২ পিএম

    বেসরকারি ফলে জয়ী হলেন যারা

    ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট প্রকাশ: ৮ মে ২০২৪, ১১:৩২ পিএম

    প্রথম ধাপের ১৩৯ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চলছে ভোট গণনা। এরইমধ্যে বেশ কয়েকটি উপজেলার বেসরকারি ফলাফল পাওয়া গেছে। এ পর্যন্ত প্রাপ্ত ফলাফলে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন:

    চেয়ারম্যান পদে পঞ্চগড় তেঁতুলিয়া উপজেলায় মো. নিজাম উদ্দীন খান, কুড়িগ্রামের চিলমারীতে রুকুজ্জামান শাহীন, কক্সবাজার সদরে নুরুল আবছার ও কুতুবদিয়াতে ব্যরিস্টার হানিফ বিন কাশেম, দিনাজপুরের বিরামপুরে পারভেজ কবির, ঘোড়াঘাটে কাজী শুভ রহমান চৌধুরী ও হাকিমপুরে কামাল হোসেন রাজ, ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে সফিকুল ইসলাম ও হরিপুরে আব্দুল কাইয়ুম, চাঁদপুর মতলব দক্ষিণে সিরাজুল মোস্তফা তালুকদার, মতলব উত্তরে মোহাম্মদ মানিক, বগুড়ার সোনাতলায় মিনহাজুজ্জামান লিটন এবং নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় মাকসুদ হোসেন, হ‌বিগঞ্জ বানিয়াচংয়ে মো. ইকবাল হো‌সেন খান, হ‌বিগ‌ঞ্জের আজমিরীগঞ্জে আলা উদ্দিন, কুতুবদিয়ায় মোহাম্মদ হানিফ বিন কাশেম, সন্দ্বীপে এস এম আনোয়ার হোসেন, জামালপুর সদরে বাবু বিজন কুমার চন্দ্র, খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে মো. জয়নাল আবেদীন, রামগড়ে বিশ্ব প্রদীপ ত্রিপুরা, ফরিদপুর সদরে শামসুল আলম চৌধুরী, মধুখালীতে মোহাম্মদ মুরাদুজ্জামান, চরভদ্রাসনে আনোয়ার আলী, বান্দরবানের সদর উপজেলায় আবদুল কুদ্দুস, আলীকদম উপজেলায় জামাল উদ্দিন, রাজশাহীর তানোরে লুৎফর রহমান, নওগাঁর ধামুইরহার উপজেলায় আজাহার আলী, শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় একেএম ইসমাইল হক, পাবনার সুজানগর উপজেলায় আব্দুল ওহাব, বেড়ায় রেজাউল হক বাবু, সাঁথিয়ায় সোহেল রানা খোকন, রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলায় খন্দকার সাইফুল ইসলাম বুড়ো, কালুখালী উপজেলায় আলিমুজ্জামান চৌধুরী টিটো, মাগুরার সদর উপজেলায় রানা আমিন ওসমান, শ্রীপুর উপজেলায় শরিয়তউল্লাহ মিয়া রাজন, সাতক্ষীরার কালীগঞ্জে শেখ মেহেদী হাসান সুমন, শ্যামনগরে সাঈদ উজ জামান সাঈদ, নাটোরের সিংড়ায় দেলোয়ার হোসেন পাশা, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে রোমা আক্তার, সরাইলে মো. শের আলম, মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় উপজেলায় মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ খান জিন্নাহ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

    এদিকে, পিরোজপুরে তিনটি উপজেলায় ইভিএম ভোট হয়েছে।

    পিরোজপুর সদর উপজেলায় দোয়াত কলম মার্কা নিয়ে এস এম বায়েজিদ হোসেন। ইন্দুরকানী উপজেলায় আনারস প্রতীক নিয়ে বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন জিয়াউল আহসান গাজী। অপরদিকে, নাজিরপুর উপজেলায় দোয়াত কলম মার্কা নিয়ে এস এম নূরে আলম সিদ্দিকী শাহীন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

    এছাড়াও পিরোজপুর সদর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে বেসরকারি ফলে বিজয়ী হয়েছেন তালা প্রতীক নিয়ে রফিকুল ইসলম সুমন।
    মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে পদ্মফুল মার্কা নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন শাহানাজ পারভীন শানু। ইন্দুরকানী উপজেলায় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে তালা মার্ক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন মাহমুদুল হক দুলাল। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে কলস মার্কা নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন দিলারা পারভীন লাভলী।

    ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল।

    কম ভোটারের জন্য বৈরি আবহাওয়াকে দুষলেন তিনি। এছাড়া কয়েকটি কেন্দ্রে অনিয়ম হয়েছে বলেও স্বীকার করেন সিইসি। বুধবার বিকেলে ভোটগ্রহণ শেষে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের সাথে তিনি কথা বলেন।

    বড় ধরনের গোলযোগ, সহিংসতা ছাড়াই শেষ হয়েছে প্রথম ধাপের ১৩৯টি উপজেলার ভোটগ্রহণ। বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে।

    প্রথম ধাপে ২২টি উপজেলায় ইভিএম ও বাকিগুলোয় ব্যালট পেপারে ভোট হয়েছে। প্রথম ধাপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন ২৮ জন প্রার্থী।

    প্রথম ধাপের উপজেলা নির্বাচনে সারাদেশে মোট ১ হাজার ৬৩৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৫৭০, ভাইস চেয়ারম্যান ৬২৫ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪৪০ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এই নির্বাচনে ভোটার প্রায় ৩ কোটি ১৪ লাখ। ভোটকেন্দ্র ছিল প্রায় ১২ হাজার। ভোটকক্ষ প্রায় ৭৮ হাজার। প্রতিটি সাধারণ ভোটকেন্দ্রে ১৭ জন সদস্য ও গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্রে ১৮ থেকে ১৯ জন করে নিরাপত্তা সদস্য নিয়োজিত ছিল।

    দেশের মোট ৪৯৫ উপজেলার মধ্যে নির্বাচন উপযোগী ৪৮৫ উপজেলায় চার ধাপে ভোট হচ্ছে এবার। সবশেষ ২০১৯ সালে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট হয় পাঁচ ধাপে।

    এফএস

    সম্পর্কিত:

    সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি

    সর্বশেষ প্রকাশিত

    Loading…